আমাকে নির্বাচন থেকে বিরত রাখতে নতুন করে ষড়যন্ত্র : এহছানুল হক মিলন


চাঁদপুর, ২৫ সেপ্টেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
চাঁদপুর-১ কচুয়া আসনটি শূন্য ঘোষণা করায় এ আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীরকে তাঁর সংসদ সদস্য পদ হারিয়েছে। নির্বাচন কমিশন আসনটি শূন্য করে ৯০ দিনের মধ্যে পুনঃনির্বাচন করার জন্য অচিরেই তারিখ ঘোষণা দেবে। এ ব্যাপারে কারাগারে আটক বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক সম্পাদক ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আ.ন.ম. এহছানুল হক মিলন আদালতে হাজিরা দিতে এসে সাংবাদিকদের কাছে তাঁর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি বলেন, আমাকে রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করা ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে নির্বাচনকে একপেশে করার জন্যে আমার বিরুদ্ধে ভ্যানিটি ব্যাগ ছিনতাই, নকিয়া ফোন, সিকো ঘড়ি, সোনার চেইন, স্কুলের মাটি চুরি, হত্যার চেষ্টা, ৬০ বছরের বৃদ্ধাকে ধর্ষণ, চাঁদবাজিসহ হত্যার চেষ্টা এই ধরনের ১৭টি মামলা করা হয়েছে। ১৪ মার্চ ২০১০ হতে অদ্যাবধি আমি জেল হাজতে বিনা চিকিৎসায় এক মানবেতর জীবন অতিবাহিত করছি। শুধু তাই নয়, রাষ্ট্রীয় কোষাগারের অর্থ অপব্যয় করে ইতিমধ্যে আমাকে ১৫ বার দেশের বিভিন্ন কারাগারে কোনো মামলা ছাড়াই স্থানান্তর করে হয়রানি করে। আমি সহ আমার সহস্রাধিক কর্মীর বিরুদ্ধেও মামলা দিয়ে হয়রানি ও অর্ধশত কর্মীকে গ্রেফতার করে জেলে প্রেরণ করেছে। এমনকি আমার স্ত্রী নাজমুন নাহার বেবীর বিরুদ্ধেও মিথ্যা মামলা দিয়েছে। তিনি বর্তমানে জামিনে আছেন। আমি যেন নির্বাচনে অংশগগ্রহণ করতে না পারি সেজন্যে একটির পর একটি হয়রানিমূলক মামলা দিয়ে আমাকে ব্যতিব্যস্ত রাখা হয়েছে। একটি মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলে পরবর্তীতে আরো দুটি করে মামলা দেয়া হচ্ছে আমার বিরুদ্বে। তিনি কচুয়ার নির্বাচন বিষয়ে আরো বলেন, নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে মামলা না করার কারণ নির্বাচনের পূর্বেই নির্বাচন কমিশন মখা আলমগীরের প্রার্থিতা অবৈধ ঘোষণা করেন। ইতোপূর্বেই তিনি আদালত কর্তৃক সাজাপ্রাপ্ত হন।

Check Also

যে কোনো আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে : বিএনপি

চাঁদপুর প্রতিনিধি :– চাঁদপুর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সাধারণ সভায় বক্তারা বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম ...

Leave a Reply