ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের লালমাইতে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী,কুমিলা থেকে :
গতকাল ভোরে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের লালমাই ষ্টেশনের উত্তর আউট সিগন্যাল পয়েন্টে ঢাকাগামী মালবাহী স্পেশাল ট্রেন এক ভয়াবহ দর্ঘটনায় ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ৪ বগী লাইন থেকে বি”িছন্ন হয়ে পাশের খাদে পড়ে যায়। দুর্ঘটনার পর ঢকা-চট্টগ্রাম-সিলেট রেল লাইনে ভোর ৩টা থেকে দুপুর ২টা পর্যš– ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে। দর্ঘটনায় রেল লাইন ব্যাপক ক্ষতিগ্র¯– হয়। উক্ত লাইনের ঢাকাগামী আš– নগর সূবর্ণ এক্রাপ্রেস, আš– নগর নিশিথা এক্রাপ্রেস, আš– নগর উদয়ন এক্রাপ্রেসসহ মেইল ট্রেনগুলো লাকসাম ও কুমিলা ষ্টেশনে আটকা পড়ে। ট্রেনের যাত্রীরা সীমাহীন দুর্ভোগের শিকার হন। খবর পেয়ে রেলওয়ের উর্ধধতন কর্তৃপক্ষ দুর্ঘটনা¯’ল পরিদর্শন করে এবং দুর্ঘটনার কারন নির্ণয়ে ৩ সদস্যর তদš– কমিটি গঠন করে।

রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা মালবাহী স্পেশাল ট্রেন লাকসাম জংশন স্টেশন থেকে গভীর রাত ২টা ৪০মিনিটে ত্যাগ করার পর ভোর ৩টায় লালমাই স্টেশনের আউট সিগনাল পয়েন্টে পৌছে এক ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ইঞ্জিনের পিছনের ৪টি বগী লাইন থেকে বি”িছন্ন হয়ে লাইনের বাহিরে খাদে পড়ে যায়। এ সময় ট্রেনের চালক এল এম ওবায়দুজ্জামান (৫০) সহকারী চালক এ এল এম আবুল হোসেন (৪৫) গুর”তর আহত হন । তারা রেলওয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। দুর্ঘটনায় রেল লাইন আঁকা বাঁকা ও ব্যাপক ক্ষতিগ্র¯– হয়। দুর্ঘটনার পর ঢাকা-চট্টগ্রাম- সিলেট লাইনে ভোর ৩টা থেকে দুপুর ২টা পর্য়š– ১১ ঘন্টা ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে। খবর পেয়ে লাকসাম থেকে রিলিফ ট্রেন, জিআরপি পুলিশ, রেলওয়ে লাকসাম নিরাপত্তা বাহিনীর প্রধান পরিদর্শক তপন কাšি– সাহার নেতৃতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা, লাকসাম লোকোসেড ইনচার্জ সুখেন্দ্র সাহার নেতৃতে লোকোদল ঘটনা¯’লে পৌছে উদ্ধার কাজ তদারকি ও লাইন পূর্ণ নির্মান করেন। এছাড়া রেলওয়ের উর্ধ্ধতন কর্মকর্তাগন ঘটনা¯’ল পরিদর্শন ও উদ্ধার কাজ তদারকি করেন। রেল লাইন মেরামত ও পূর্ণ নির্মান সম্পূর্ন হলে দুপুর ২টায় ঢাকা চট্টগ্রাম সিলেট লাইনে ট্রেন চলাচল পূনরায় শুর” হয়। দুর্ঘটনার পর লালমাই স্টেশন মাষ্টার পলাতক রয়েছেন। ট্রেন দুর্ঘটনার কারনে ঢাকাগামী আš– নগর সূবর্ণ এক্রাপ্রেস ট্রেনসহ মেইল ট্রেন গুলো লাকসাম ষ্টেশনে ও চট্টগ্রামগামী আš– নগর নিশিথা এক্রাপ্রেস, ও আš– নগর উদয়ন এক্রাপ্রেস, জালালাবাদ এক্রাপ্রেসসহ মেইল ট্রেন গুলো কুমিলা ষ্টেশনে আটকা পড়ে। ট্রেন আটকা পড়ায় যাত্রীরা সীমাহিন দুর্ভোগের শিকার হন। ট্রেন দুর্ঘটনার কারনে রেলওয়ের উর্ধ্ধতন কর্তৃপক্ষ রেলওয়ের চট্টগ্রাম বিভাগীয় মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার (ডিএসই), বিভাগীয় বানিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও), বিভাগীয় ট্রাফিক অফিসার (ডিটিও)কে নিয়ে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদš– কমিটি গঠন করেন। প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী জানান রেলওয়ের প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দায়িত্বে অবহেলায় লাইন ত্র”টির কারনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

Check Also

লাকসাম-মনোহরগঞ্জের বিএনপি’র সাবেক এমপি আলমগীরের জাতীয় পার্টিতে যোগদান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা-১০ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) বিএনপি’র সাবেক এমপি এটিএম আলমগীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। সোমবার জাতীয় ...

Leave a Reply