চৌদ্দগ্রামে উপজেলা চেয়ারম্যানের হাতে ইউপি চেয়ারম্যান লাঞ্ছিত

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, ২৯ আগস্ট ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলা পরিষদে মাসিক সমন্বয় সভায় নুরুল বাহার নামের এক ইউপি চেয়ারম্যানের অশালীন বক্তব্যকে কেন্দ্র করে ঘটে যায় তুলকালাম কান্ড। এক পর্যায়ে ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে লাঞ্ছিত করে সভা থেকে বের করে দেয়া হয়।
জানা গেছে, উপজেলা অডিটরিয়ামে মাসিক সমন্বয় সভায় বক্তব্য রাখেন কনকাপৈত ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল বাহার। তার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, বক্তব্যে তিনি টিআর-কাবিখা নিয়ে কথা বলার এক পর্যায়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সোবহান ভূঁইয়া হাসান ভূঁইয়ার সাথে তার কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে ঘুষি মেরে ও গালমন্দ করে সভা থেকে তাড়িয়ে দেন। এ নিয়ে সভায় উত্তেজনা দেখা দেয়ায় তড়িঘড়ি করে সভা শেষ করা হয়।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যান জানান, চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল বাহার ‘চেয়ারম্যান এসোসিয়েশন’কে অবহিত না করে বক্তব্যে অহেতুক কথা বলায় ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় বিকালে চেয়ারম্যান নুরুল বাহার স্থানীয় একটি হোটেলে সাংবাদিক সম্মেলন করে উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানদের থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ তুলেন। প্রসঙ্গতঃ ইতোপূর্বে স্থানীয় এক সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় চেয়ারম্যান নুরুল বাহারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়। এছাড়াও ওই ইউপির ৯ সদস্য তার বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে অনাস্থা দিয়েছিল।

এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সোবহান ভূঁইয়া হাসান গতকাল জানান, একটি কমিটি গঠন নিয়ে গতকাল চেয়ারম্যান নুরুল বাহার তার বক্তব্যে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাশেদার প্রতি অশালীন উক্তি করেন। এ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান খলিল ও নুরুল বাহারের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যানরা তাকে সভা থেকে বের করে দেয়। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, চাঁদাবাজি ও অন্যান্য বিষয়ে নুরুল বাহারের আনীত অভিযোগ মিথ্যা।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply