চাঁদপুরে জেলা পরিষদের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণের অভিযোগ


চাঁদপুর,১৯ আগস্ট ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
চাঁদপুরে জেলা পরিষদের জায়গা দখল করে একটি বহুতল ভবন নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ওই অবৈধ দখলকারকে উচ্ছেদে ব্যর্থ হয়ে জেলা প্রশাসকের সহযোগিতা চেয়েছেন। জেলা প্রশাসনের সহযোগিতার প্রক্রিয়াকে কোনো কারণ ছাড়াই ২২ দিন ঝুলিয়ে দিয়েছেন রাজস্ব শাখার প্রধান অফিস সহকারী নুরুজ্জামান। ওই সময়ে দখলদার ভবনটির কাজ প্রায় সিংহ ভাগ শেষ করে ফেলেছেন। অফিস কাজে গাফলতির কারণে জেলা প্রশাসন ওই সহকারীকে কারণ দর্শানো সহ গত মঙ্গলবার থেকে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার আবেদন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল কাইউম সরকার ব্যাপারটি এখন থেকে নিজেই দেখবেন বলে জানিয়েছেন।
জেলা পরিষদ সূত্র জানায়, চাঁদপুর-কুমিল্লা সড়কের উত্তর পাশ থেকে জিটি রোড ও বিটি রোড পর্যন্ত তাদের অনেক সম্পত্তি রয়েছে। কোনো এক সময় ওই জায়গা বিভিন্ন ব্যক্তিকে লিজ দেয়া হয়েছিলো। ২০০৮ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি এসব সম্পত্তি সহ পৌর এলাকায় জেলা পরিষদের সকল সম্পত্তির লিজ সরকারি সিদ্ধান্তে বাতিল করা হয়। বর্তমানে যে সম্পত্তিতে বহুতল ভবন নির্মাণ করছে ওই সম্পত্তির লিজ বাতিল সংক্রান্ত ৩টি চিঠি গত ৫/২/০৮-১১/০৩/০৮ এবং ২৫/৩/০৮ তারিখে তাকে দেয়া হয়। এমতাবস্থায় হঠাৎ করে চলতি বছরের জুন মাসে শরীফ মোঃ ইউনুছ ওই সম্পত্তিতে স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণ শুরু করেন। খবর পেয়ে জেলা পরিষদ গত ২২/৬/১০ তারিখে ইউনুছকে অবকাঠামো নির্মাণ বন্ধের নির্দেশ দেন। জেলা পরিষদের পত্রের জবাবে তিনি ২৭/৬/১০ তারিখের উত্তরে নিজ সম্পত্তিতে ভবন নির্মাণের দাবি করেন। ওই উত্তরের প্রেক্ষিতে জেলা পরিষদ গত ১৮/৭/১০ তারিখে ভূমি চিহ্নিত করে সীমানা নির্ধারণের জন্যে জেলা প্রশাসকের সহায়তা চেয়ে পত্র দেন। জেলা প্রশাসক পত্র মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে রাজস্ব শাখাকে নির্দেশ দিলেও ওই অফিস সহকারীর কারণে তা আজো বাস্তবায়ন করা যায়নি। তিনি গত ২২ দিন সংশিষ্ট শাখার দায়িত্বরত কর্মকর্তাকে কার্যক্রম গ্রহণে সহযোগিতা না করে এতদসংক্রান্ত অফিস আদেশটি লুকিয়ে রাখেন। জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, চাঁদপুর-কুমিল্লা সড়ক বিভাগের জায়গার উপর শরীফ মোঃ ইউনুছের সামান্য কিছু সম্পত্তি রয়েছে। তারপর জেলা পরিষদের ৩৬ ফুট প্রশস্ত এবং ৭৫ ফুট দৈর্ঘ্য সম্পত্তি রয়েছে। এরপর উত্তরে শরীফ মোঃ ইউনুছের সম্পত্তি। বর্তমানে যে সম্পত্তিতে তিনি বহুতল ভবন নির্মাণ করেছেন সেই ভবনটির প্রায় ৮০ ভাগ জেলা পরিষদের সম্পত্তিতে রয়েছে।

Check Also

যে কোনো আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে : বিএনপি

চাঁদপুর প্রতিনিধি :– চাঁদপুর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সাধারণ সভায় বক্তারা বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম ...

Leave a Reply