ছাত্রলীগের ধর্মঘটে ফের অচল কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়:প্রশাসনের দুর্বলতাকেই দায়ী করছেন সংস্লিস্টরা


মো: কামরুল হাসান, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় :
ছাত্রলীগের একাংশের ধর্মঘটে ফের অচল হয়ে পড়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়। তুচ্ছ ঘটনায় সোমবার আকস্মিক ধর্মঘট আহ্বান করে ছাত্রলীগের শহর গ্রুপ বহিরাগতদের নিয়ে কোন পূর্বঘোষণা ছাড়াই ক্যাম্পাসগামী ছাত্র-ছাত্রী পরিবহনের সব কয়টি বাস শহরে আটকে দেয় তারা। এ সময় শহর গ্রুপের কর্মীরা তাদের সমর্থনকারী দলীয় কর্মীদের নিয়ে সিএনজি বা অন্য কোন পরিবহনেও ছাত্র-ছাত্রীদের ক্যাম্পাসে যেতে বাধা প্রদান করে । এতে করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি বিভাগের পূর্ব নির্ধারিত সেমিষ্টার ফাইনালসহ সকল বিভাগের পরীক্ষা ও ক্লাস বন্ধ হয়ে যায়। অচল হয়ে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরো একাডেমিক কার্যক্রম। পরবর্তীতে দুপুরে রেজিস্ট্রার, পরিবহন কমিটির সদস্যরা এবং প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সহায়তায় বাস গুলো ক্যাম্পাস নিয়ে যায়। তুচ্ছ ঘটনায় বারবার ক্যাম্পাস অচল করে দেয়ার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দুর্বলতাকেই দায়ী করছে শিক্ষক শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সংস্লিস্টরা।
গূত্র থেকে জানা যায়, গত ১১ আগস্ট ছাত্রলীগ স্থানীয় গ্রুপের কর্মী ফয়সাল, মাসুম, ইমরানকে শহরে বহিরাগত ছাত্রলীগ কর্মীরা মারধর করে। এই ঘটনার পরদিন ছাত্রলীগ স্থানীয় গ্রুপের কর্মীরা শহর গ্রুপের কর্মী কামরুল ও পারভেজকে মারধর করে। এরই প্রতিবাদে গতকাল সকালে শহর গ্রুপের কর্মীরা বহিরাগতদের নিয়ে ক্যাম্পাস অভিমুখী ছাত্রছাত্রী পরিবহনের সবকটি বাস আটকে টাউন হল চত্বরে নিয়ে যায়। তবে তা অস্বীকার করে ছাত্রলীগ শহর গ্রুপের নেতা মইনুদ্দিন চিশতি বলেন, কারা বাস অটক করেছে আমি এ সম্পর্কে কিছুই জানি না। আর সাধারন শিক্ষার্থীরা যদি বাস আটক করে তাহলে আমাদের কিছুই করার নাই। বাস আটক করায় শিক্ষার্থীরা সিএনজি যোগে ক্যাম্পাসে যেতে চাইলে সেখানেও বাধা দেয়া হয়। বলা হয় এমপি হাজী বাহারের নির্দেশ আছে ক্যাম্পাসে কেউ যেতে পারবে না। এ ব্যপারে এমপি আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহারের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে মোবাইলে পাওয়া যায়নি। এদিকে শহরে বাস আটকে রাখায় ক্যাম্পাসে পূর্বনির্ধারিত দুটি বিভাগের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষাসহ সকল একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।
বাস আটকের খবর শুনে শহরে ছুটে যান রেজিস্ট্রার কামাল উদ্দিন ভুইয়াসহ প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা। দুপুর সাড়ে বারটায় আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় বাসগুলো ছাড়িয়ে ক্যাম্পাসে নিয়ে যাওয়া হয়। এ ব্যাপারে সহকারী প্রক্টর মো: তাজুল ইসলাম জানান, আমরা দীর্ঘমেয়াদী সমাধানের চেষ্টা করছি। আশা করি কালকে থেকে ক্লাস পরীক্ষা নিয়মিত হবে।

Check Also

কুবি সাংবাদিক সমিতির অভিষেক অনুষ্ঠান পালিত

মো শরীফুল ইসলাম,কুবি :– বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা ও স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচনের মধ্য দিয়ে ...

Leave a Reply