ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্রামবাসীর সংঘর্ষে ওসিসহ আহত অর্ধশতাধিক


ব্রাহ্মণবাড়িয়া,০৪ আগস্ট ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সিএনজি’তে যাত্রী তোলা নিয়ে দু’চালকের বিরোধের জের ধরে কয়েক হাজার মানুষের সংঘর্ষে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৮ রাউন্ড টিয়ার সেল ও ৪ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপসহ ১৮জনকে আটক করেছে। সংঘর্ষ চলাকালে দীর্ঘ দেড় ঘন্টা ঢাকা-সিলেট ও কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে কোন যানবাহন চলাচল করেনি। মঙ্গলবার বিকালে সদর উপজেলার বিশ্বরোডে এ ঘটনা ঘটে।
কুমিল্লা- সিলেট ও ঢাকা- সিলেট মহাসড়কের বিশ্বরোড মোড়ে সিএনজিতে যাত্রী তোলা নিয়ে খাটিহাতা গ্রামের সিএনজি চালক মনু মিয়ার সাথে মালিহাতা গ্রামের গোলাপ মিয়ার মারামারি হয়। এ ঘটনার জের ধরে মালিহাতা ও বেতবাড়িয়া গ্রামের লোকজন মনু মিয়াকে মারধর করে। এরপর বিকাল ৪টা থেকে খাটিহাতা ও বেতবাড়িয়ার কয়েক হাজার লোক দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সংঘর্ষে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হামিদুল ইসলামসহ উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। আহতদের মধ্যে মন্ডু মিয়া (৩৫), আবু চাঁন (৪৫), মাওদ হোসেন (২৫), হেলাল (২৫) জাহাঙ্গীর (২৫), জাকির (১৮) হোসেন মিয়া (২০), নোয়াব মিয়া (৩৭), সোহেল (২৪), আজহার মিয়া (২১), খোরশেদ মিয়া (৩৫) কে বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক আব্দুল মান্নান, পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান, সহকারী পুলিশ সুপার সঞ্জয় সরকার, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হামিদুল ইসলাম ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালায়। পুলিশ এ সময় বেধড়ক লাঠিচার্জসহ ৮ রাউন্ড টিয়ার সেল ও ৪ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষ চলাকালে বিশ্বরোড মোড়সহ আশপাশ রাস্তা রণক্ষেত্রে পরিণত হলে যানচলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। দু’পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এ সময় যাত্রীদের চরম দূর্ভোগে পড়তে হয়।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply