দেবিদ্বারের ভন্ডপীর আঃ মতিন জেলহাজতে

Vondopir of Comilla
দেবিদ্বার উপজেলার ভন্ডপীর আবদুল মতিনকে একটি ধর্ষণ ও প্রতারণা মামলায় মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জহিরুল ইসলামের আদালতে হাজির হলে তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।
জানা যায়, ওই ভন্ডপীর প্রতারক আবদুল মতিন দেবিদ্বারের ইউসুফপুর তার নিজ গ্রামে আস্তানা গেড়ে নিজেকে মিথ্যা নব্যুওয়াত দাবি, নারী ধর্ষণসহ প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করার পর জনতার প্রতিরোধের মুখে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। তার বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ওই গ্রামের আমেরিকা প্রবাসী আলমগীর বাদী হয়ে তার স্ত্রীকে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগে গত ২৪ মে দেবিদ্বার থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী গত ২২ জুলাই তার ভক্তদের নিয়ে কুমিল্লার আদালতে হাজিরা দেয়ার জন্য এসে ফেরার পথে শহরের শাসনগাছা এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনীর শিকার হন। এতে ভাগ্যক্রমে ওই ভন্ডপীরসহ তার ৭ ভক্ত প্রাণে রক্ষা পেলেও ঘটনাস্থলে নিহত হয় আব্দুল হাই মামুন নামের এক ভক্ত। হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার পুনরায় কুমিল্লার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজিরা দিতে এলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। ভন্ডপীর আবদুল মতিনকে জেলহাজতে প্রেরণের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে জনতা আনন্দ উল্লাসে মিষ্টি বিতরণ করে।
উল্লেখ্য, জেলার দেবিদ্বার উপজেলার ইউছুফপুর গ্রামে আবদুল মতিন নামের এক ভন্ডপীর আমেরিকা প্রবাসী এক মহিলাকে ‘নুরের সন্তান’ জন্ম দেবার প্রলোভনে পীরের গোপন আস্তানায় অবৈধ মেলামেশা করাসহ প্রায় সাড়ে ১৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। এ বিষয়ে থানায় মামলা দায়ের করার পর আস্তানা ছেড়ে পালিয়ে যায় ভন্ডপীর ও তার সহযোগীরা। ওই এলাকায় এলাকাবাসীর সাথে আলাপকালে ওই ভন্ডপীরের নানা অপকর্ম বেড়িয়ে আসে। দীর্ঘ প্রায় ২ যুগ যাবৎ ওই ভন্ডপীর তার আস্তানায় অসংখ্য মহিলাকে নূরের সন্তান জন্ম দেবার প্রলোভনে অবৈধ মেলামেশা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়রা জানান, আবদুল মতিন (৫৮) প্রায় ২ যুগ যাবৎ এলাকায় নিজকে পীর দাবী করে প্রতারনা করে অর্থ লোপাট করে কোটিপতি হয়েছেন। নানা প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে ভক্তদের নিকট থেকে লুটে নিয়েছেন বিপূল পরিমান অর্থ। ইউছুফপুর গ্রামে প্রতিষ্ঠা করেছেন ব্যয় বহুল আস্তানা। ওই আস্তানার গোপন কক্ষেই দিবা রাত্রি চলতো ওই ভন্ডপীরের অনৈতিক যতো কর্মকান্ড। সর্বশেষ এক আমেরিকা প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে অবৈধভাবে মেলামেশা করে তাকে অন্তস্বত্বা করার পরই ওই ভন্ড পীরের সকল অপকর্ম এলাকায় ফাঁস হয়ে যায়। গত ২৪ মে একই গ্রামের আমেরিকা প্রবাসী আলমগীর আবদুল মান্নান (৫০) বাদী হয়ে দেবিদ্বার থানায় ওই ভন্ডপীরের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায় তিনি (মামলার বাদী) ও তার স্ত্রী পারভীন আক্তার (৩৮) কে নানা প্রলোভনে ওই ভন্ডপীর তার নিকট মুরিদ হতে বাধ্য করে। গত ১০ এপ্রিল ওই আমেরিকা প্রবাসীর স্ত্রী পারভীন আক্তার দেশে এসে পর দিন ওই ভন্ডপীরের আস্তানায় তার সাথে দেখা করতে গেলে তাকে বেহেস্তের টিকেট পেতে হলে ৬ লাখ টাকা দাবী করে। ভন্ডপীরের প্ররোচনায় ১৭ এপ্রিল থেকে ২২ এপ্রিল পর্যন্ত ভন্ডপীরের আস্তানায় ওই মহিলাকে রেখে তার সাথে অবৈধ মেলামেশা করতে বাধ্য করা হয়। এ সময় ওই পীর সুকৌশলে ওই মহিলার নিকট থেকে ৫ লাখ ৫২ হাজার টাকাও হাতিয়ে নেয়। ২৭ এপ্রিল সে আমেরিকায় ফিরে গিয়ে নুরের সন্তান জন্ম লাভের আশায় ওই ভন্ড পীর তার সাথে ৫ দিন- ৫রাত অবৈধ মেলামেশা ও অন্তস্বত্বা হওয়ার বিষয়টি স্বামীর নিকট প্রকাশ করে। প্রতারনার শিকার ওই মহিলার স্বামী আলমগীর গত ১৯ মে বাংলাদেশে আসার পর ওই ভন্ডপীরের মুখোঁশ উন্মোচিত করে ফেলায় এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। ভন্ডপীরের বিচারের দাবীতে এ নিয়ে ইতিমধ্যে এলাকায় বিক্ষোভ, সমাবেশ, প্রতিবাদ সভা ও পোষ্টারিং করা হয়েছে। থানায় দায়েরকৃত মামলায় আরো অভিযোগ করা হয়, ভন্ডপীর ওই প্রবাসী ও তার স্ত্রীর নিকট থেকে বিভিন্ন সময় প্রতারনার আশ্রয়ে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ১৩ লাখ ৫২ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এছাড়াও ওই পীর তার নিকট আসা মহিলাদেরকে নুরের সন্তান জন্ম দেবার প্রলোভন দেখিয়ে গোপন আস্তানার একটি সংরক্ষিত কক্ষে এনে অবৈধ মেলামেশা করেছেন বলেও মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে। এদিকে, ওই ভন্ডপীরের বিচারের দাবিতে গত ২৬ জুন শহরতলীর একটি হোটেলের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত সমাবেশে দেশের শীর্ষ স্থানীয় পীর-মাশায়েখসহ জাতীয় ও স্থানীয় আলেম-ওলামাগণ উপস্থিত ছিলে। ওই সমাবেশে আবদুল মতিনকে মিথ্যা নবুয়ত দাবীদার, প্রতারক, নারী লোভী, ইসলামদ্রোহী আখ্যায়িত করে অবিলম্বে তাকে গ্রেফতারসহ ফাঁসির দাবি জানিয়ে আসছিল।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply