মতলবে পাষণ্ড স্বামীর হাতে স্ত্রী ও কন্যা খুন


চাঁদপুর, জুলাই ২৫,২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
মতলব দক্ষিণ উপজেলার আশ্বিনপুর গ্রামের বৈদ্য বাড়িতে পাষন্ড স্বামী, স্ত্রী ও সন্তানকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করেছে। এই ঘটনায় জনতা স্বামী নাজমুল (২৮) কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।
জানা যায়, আশ্বিনপুর বৈদ্য বাড়ির নাজমুলের সাথে আড়াই বছর পূর্বে কচুয়া উপজেলার আবুল কাশেমের মেয়ে হোসনেয়ারার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই উভয়ের মধ্যে মতানৈক্য সৃষ্টি হয়। এর মাঝেই হোসনেয়ারার গর্ভে এক কন্যা সন্তান জš§ হয়। প্রায় সময়ই উভয়ের মধ্যে পারিবারিক কলহ হত বলে স্থানীয় লোকজন জানায়। এদিকে হোসনেয়ারার পিতা আবুল কাশেম মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে এসে মেয়ে ও নাতনীকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করেন। পরবর্তীতে আবুল কাশেমের সন্দেহ হলে মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশকে বিষয়টি মৌখিক ভাবে জানায়। নাজমুলের মামা সামাদ, গিয়াস উদ্দিন, বাবলু ও নাজমুল ঘটনার পর থেকে পালিয়ে রয়েছে বলে আবুল কাশেম জানান। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে এলাকাবাসী তাদেরকে খোঁজতে শুরু করে। গতকাল ২৪ জুলাই নাজমুলকে জনগণ দেখতে পেয়ে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়। পরে নাজমুল পুলিশকে জানায়, সে নিজেই স্ত্রী হোসনেয়ারা বেগম (২১) ও সন্তান নাজনীন (১) কে শ্বাস রুদ্ধ করে হত্যা করে পুরাতন বৈদ্য বাড়ির টয়লেটের ট্যাঙ্কির মধ্যে ফেলে রাখে। পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনদের সঙ্গে করে নাজমুল টয়লেটের ট্যাঙ্কির কাছে নিয়ে যায় স্ত্রী কন্যার লাশ দেখাতে। পরে পুলিশ ট্যাাঙ্ক থেকে লাশ দুটো উদ্ধার করে চাঁদপুর মর্গে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে মতলব দক্ষিণ থানায় একটি মামলা হয়েছে।
এদিকে হোসনেয়ারা বেগম ও তার সন্তানের মৃত্যুর খবর শুনে এলাকার হাজার হাজার লোক এক নজর দেখার জন্য ছুটে যায় ঘটনাস্থলে। শিশু সন্তান নাজনীন ও হোসনেয়ারার লাশ দেখে স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নাজমুলের মামা সামাদ, গিয়াস উদ্দিন, বাবলুর বাড়িতে কেউ নেই। স্থানীয় লোকজন জানায়, নাজমুলের মামারা পালিয়ে গেছে।

Check Also

যে কোনো আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে : বিএনপি

চাঁদপুর প্রতিনিধি :– চাঁদপুর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সাধারণ সভায় বক্তারা বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম ...

Leave a Reply