দেশের খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনে বার্ডই প্রথম অবদান রাখে :এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী


স্টাফ রিপোর্টার, ২২ জুলাই ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
উচ্চ ফলনশীল জাতের ধান চাষ সম্প্রসারণের মাধ্যমে খাদ্যে স্ব-নির্ভরতা ও খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমী (বার্ড)-ই বাংলাদেশে প্রথম অবদান রাখে বলে উল্লেখ করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি। তিনি বলেন- টেকসই উন্নয়নের জন্য মানব সম্পদ উন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই। দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে এটি একটি পূর্বশর্ত। বার্ড মানব সম্পদ উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছে। তিনি গতকাল বুধবার বার্ড মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ৪৪তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে একথা বলেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের পল্লী অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে বার্ড উদ্ভাবিত বিভিন্ন মডেল গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে। সম্প্রতি উদ্ভাবিত সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন কর্মসূচি (সিভিডিপি) জাতীয় কর্মসূচি হিসেবে সরকার গ্রহণ করেছে এবং এর সম্প্রসারণে সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। বক্তৃতায় তিনি আরো বলেন, বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকার দারিদ্র্য দূরীকরণের ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেছে। সরকার পুনরায় একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পকে দেশের ৪৮২টি উপজেলায় বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে। সরকারের ‘ভিশন ২০২১’অনুযায়ী ২০১৩ সালের মধ্যে দারিদ্র্যের হার শতকরা ২৫ ভাগে নামিয়ে আনা হবে। এ লক্ষ্য অর্জনের উদ্দেশ্যে সরকার সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনীর আওতায় অধিক সংখ্যক সুবিধাভোগীকে সম্পৃক্ত করেছে। প্রধান অতিথি অতীতের ন্যয় ভবিষ্যতেও বার্ডের প্রশিক্ষণ, গবেষণা ও প্রায়োগিক গবেষণা কার্যক্রম দেশের সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। তিনি বার্ডের প্রায়োগিক গবেষণায় কৃষি উৎপাদনের আধুনিকায়ন, পল্লী অঞ্চলে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, গ্রামীণ জালানীর উৎস হিসেবে বায়োগ্যাস ও সৌর শক্তির ব্যবহার, গ্রামীণ অকৃষি কার্যক্রম, কৃষি ভিত্তিক পল্লী শিল্প ও খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ, জলবায়ু পরিবর্তন জনিত অভিযোজন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং জৈব চাষাবাদ পদ্ধতি সমূহ বিবেচনায় আনার আহবান জানান।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বার্ডের মহা পরিচালক মোঃ আতাউর রহমান, বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী এবং পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় সচিব রোকেয়া সুলতানা। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত মহা পরিচালক মোহাম্মদ মীর কাসেম। সম্মেলনে পরিচিতিমূলক বক্তব্য রাখেন সম্মেলন আহবায়ক ড. একে শরীফ উল্লাহ এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন পরিচালক (প্রশিক্ষণ) ড. এসজে আনোয়ার জাহিদ।
সম্মেলনে জানানো হয় যে, বার্ড বিগত বছরে ৯৪টি প্রশিক্ষণ কোর্সের মাধ্যমে ৩.৯৭৭ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করে দক্ষ মানব সম্পদে পরিণত করার পাশাপাশি পল্লী আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক গবেষণা ও প্রায়োগিক গবেষণা পরিচালনা করেছে। বার্ড উদ্ভাবিত সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন কর্মসূচি (সিভিডিপি) সরকার দেশের ৬৪ জেলার ৬৬ উপজেলায় ৪.২৭৫টি গ্রামে জাতীয় কর্মসূচি হিসেবে বাস্তবায়ন করছে। বার্ডের উপ-পরিচালক রঞ্জন কুমার গুহ ও সহকারী পরিচালক যোনায়েদ রহীম যথাক্রমে সহযোগী ও সহকারী সম্মেলন পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply