এখনই নিজেকে বিকাশের চেষ্টা না করলে পিছিয়ে পড়তে হবে : শিশু-কিশোর উৎসবে আলোচনায় অতিথিরা


কুমিল্লা, ১৪ জুলাই ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
আনন্দলোকে চল্্, ভাঙ্গিয়া শৃংখল’ এ শ্লোগান নিয়ে যাত্রা শুরু করা পক্ষকাল ব্যাপী শিশু-কিশোর উৎসব ‘ফুল পাখিরা উঠল মেতে’র প্রতিযোগিতা পর্ব গতকাল কুমিল্লা হাই স্কুলে ও রাজ্জাক উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০টায় কুমিল্লা হাই স্কুলের বালিকা শাখায় সাহিত্য-সাংস্কৃতিক ও অরাজনৈতিক সংগঠন ‘সেতুবন্ধন ফোরাম’ আয়োজিত উৎসবের প্রতিযোগিতা পর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন রোটারী ক্লাব অব লালমাই’র সভাপতি, ভিক্টোরিয়া কলেজের সাবেক জিএস আলহাজ্ব জাকির হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় মহিলা সংস্থার সাবেক সভাপতি ও কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজের সাবেক ভিপি অধ্যাপিকা জেএন লিলি, কুমিল্লা হাই স্কুলের বালিকা শাখার প্রধান শিক্ষক আবদুল মান্নান প্রমুখ। ‘সেতুবন্ধন ফোরাম’ সভাপতি মুনিফ আম্মারের সভাপতিত্বে ও সদস্য জহিরুল কাইউম শিমুলের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত উৎসবের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন খাদিজাতুল কোবরা। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ভিক্টোরিয়া কলেজ রেভলিউশন ইউনিয়নের আহবায়ক আবদুল হালিম।

অতিথিরা তাদের আলোচনায় বলেন, সময় এখন অনেক এগিয়েছে। নিজেকে বিকাশ করার সুযোগও এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি। এই সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে সঠিকভাবে। পড়াশুনার পাশাপাশি সাহিত্য, বিজ্ঞান, খেলাধুলার চর্চাও করতে হবে নিয়মিত। তা না হলে পিছিয়ে পড়তে হবে।’
তাঁরা আরও বলেন, মুসা ইব্রাহিমের মত এভারেস্ট জয় করতে হলে আত্মবিশ্বাস আর সাহসের মাত্রা বাড়াতে হবে। সফলতা তবেই ধরা দিবে সবার কাছে।’
দুপুর ১টায় একই স্কুলের বালক শাখায় প্রতিযোগিতা পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আলোচনা করেন উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর কেন্দ্রীয় সদস্য ও কুমিল্লা জেলা সহ সভাপতি শেখ ফরিদ, কুমিল্লা হাই স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক হুমায়ন কবীর প্রমুখ। কুমিল্লা হাই স্কুলের বালক ও বালিকা বিভাগে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতা পর্বে অংশ নেয়। স্বতস্ফূর্ত এ অংশগ্রহণে আয়োজকদের অনেকটা হিমশিমে ফেলে দেয়।

এদিকে বিকাল সাড়ে ৩টায় হাউজিং এস্টেট রাজ্জাক উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় উৎসবের প্রতিযোগিতা পর্ব। এ পর্বে স্কুলের প্রধান শিক্ষক সহ অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। রাজ্জাক উচ্চ বিদ্যালয়ে শতাধিক শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।
এছাড়াও গতকাল নবাব ফয়জুন্নেসা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের তত্বাবধানে প্রতিযোগিতা কার্যক্রম সমাপ্ত হয়। এতে পাঁচশত শিক্ষার্থী অংশ নেয়। প্রতিযোগিতা পর্ব বাস্তবায়নে শারমিন আক্তার, ফাতেমা আক্তার রত্মা, কামরুন নাহার লিপি, খাদিজাতুল কোবরা, শফিকুল ইসলাম, জহিরুল কাইউম শিমুল, গাজী সালাহউদ্দিন স্বাধীন সহ সেতুবন্ধন ফোরাম সদস্যদের নিরলস পরিশ্রমের জন্য তাদেরকে স্কুল কর্তৃপক্ষ ও অতিথিরা সাধুবাদ জানান।
আগামীকাল বৃহস্পতিবার উৎসবের সর্বশেষ প্রতিযোগিতা পর্ব ফরিদা বিদ্যায়তনে অনুষ্ঠিত হবে বলে সেতুবন্ধন ফোরাম সুত্রে জানানো হয়।
-প্রচার বিভাগ
সেতুবন্ধন ফোরাম, কুমিল্লা।

Check Also

দেবিদ্বারে অগ্নিকান্ডে ১কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ– কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামে রান্না ঘরের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে ১৫টি ...

Leave a Reply