দুপুর পর্যন্ত মান্নান ভূঁইয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি সন্ধ্যার দিকে কিছুটা উন্নতি হয়েছে : শয্যাপাশে রাজনৈতিক সহকর্মীরা


ঢাকা, ০৯ জুলাই ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির সাবেক মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়ার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়েছে। তাকে এক নজর দেখতে হাসপাতালে ভিড় করছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতা, বুদ্ধিজীবী ও পেশাজীবীসহ অনেকেই। শুক্রবার দুপুরে স্কয়ার হাসপাতালের ইনসেনটিভ কেয়ার ইউনিটের (আইসিইউ) প্রধান ডা. মির্জা নাজিম উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ফুসফুসে ক্যান্সার আক্রান্ত মান্নান ভুঁইয়াকে কেমোথেরাপি দেয়ার পর ওনার কিডনি থেকে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। কাজেই এ মুহূর্তে তার অবস্থা আরো সঙ্কটাপন্ন। এছাড়া বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে মান্নান ভুঁইয়ার (৬৭) শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে ১০২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উন্নীত হওয়ার পর শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত অবস্থার উন্নতি হয়নি বলে জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। মান্নান ভূঁইয়ার অক্সিজেন গ্রহণের ক্ষমতাও কমেছে জানিয়ে ব্যক্তিগত চিকিৎসক বজলুল গনী ভূঁইয়া জানান, গত দুদিন কৃত্রিম যন্ত্রের মাধ্যমে তাকে ৭০-৮০ ভাগ অক্সিজেন দেওয়া হলেও শুক্রবার সকাল থেকে শতভাগ অক্সিজেন দিতে হচ্ছে। এ পরিস্থিতে জরুরি ভিত্তিতে ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ কামরুজ্জামান চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি বোর্ড গঠন করা হয়। তারা দুই দফায় স্কয়ার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) লাইফ সাপোর্টে চিকিৎসাধীন মান্নান ভূঁইয়ার অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন।
শুক্রবার সকাল থেকেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা মান্নান ভূঁইয়াকে দেখতে হাসপালে যান। এদের মধ্যে দুপুর ১২টার দিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ডক্টর খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও নজরুল ইসলাম খান, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দলের সাবেক এ মহাসচিবকে দেখতে যান। এ সময় একসময়ের রাজনৈতিক সহকর্মী মান্নান ভূঁইয়ার রোগমুক্তির জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চান দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মোশাররফ। মান্নান ভূঁইয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান জানান, ‘আমরা গতকালের বৈঠকেও এ বিষয়টি সহানুভূতির সঙ্গে আলোচনা করেছি। তবে এমন পরিস্থিতিতে তার সম্পর্কে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নেয়ার বিষয়টি মুখ্য নয়।’
শুক্রবার রাত আটটায় আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল জলিল স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মান্নান ভূঁইয়াকে দেখতে যান। তিনি আইসিইউতে বিএনপির সাবেক মহাসচিবের শয্যাপাশে কিছু সময় কাটান এবং তার চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। জলির এ সময়ে মান্নান ভূঁইয়ার স্ত্রী অধ্যাপক মরিয়ম বেগমের সঙ্গেও কথা বলেন।
শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে মান্নান ভূঁইয়ার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে । সকাল থেকে তার অবস্থা ক্রমশ অবনতির দিকে যাচ্ছিল। সন্ধ্যায় মান্নান ভূঁইয়ার চিকিৎসক বজলুল গনী ভূঁইয়া বলেন, ”সন্ধ্যা ৬টার পর মান্নান ভূঁইয়ার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তার শরীরের তাপমাত্রাও কমে এসেছে। এখন তার শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক পর্যায়ে নেমে এসেছে।”
প্রসঙ্গত, ফুসফুস ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য গত ৩১ মে মান্নান ভূঁইয়া সিঙ্গাপুর যান। সেখানে তিনি সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) চিকিৎসাধীন থাকার সময় তার দেহে মোট আটটি কেমোথেরাপি দেওয়া হয়। সর্বশেষ কেমোথেরাপি দেয়ার পর থেকে তিনি স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে না পারায় চিকিৎসকদের পরামর্শে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় গত বুধবার সন্ধ্যায় তাকে ঢাকায় ফেরত আনা হয়। এরপর রাত ৮টার দিকে তাকে স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউ-তে ভর্তি করা হয়।

Check Also

মিনি ওয়াক-ইন-সেন্টারের মাধ্যমে রবি’র গ্রাহক সেবা সম্প্রসারণ

ঢাকা :– গ্রাহক সেবাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মোবাইলফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড সম্প্রতি মিনি ওয়াক ...

Leave a Reply