পুলিশি বাধার মুখে দেশব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি


ঢাকা, ০৭ জুলাই ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
হরতাল কর্মসূচি ঘিরে গ্রেপ্তারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে রাজধানীসহ দেশব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। সকাল ১১টা থেকে শুরু হওয়া এই কর্মসূচি পালনে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ বাধা দিয়েছে। রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থেকে গাবতলী পর্যন্ত ১৭টি স্পটে বুধবার সকাল ১১টা থেকে ঘোষিত কর্মসূচি পালনকালে জাতীয় প্রেসক্লাব, মতিঝিল শাপলা চত্ত্বরসহ বিভিন্ন স্থানে দাঁড়াতেই পারেনি দলটির নেতাকর্মীরা। কর্মসূচি পালনকালে কাওরান বাজার এলাকায় গাড়ি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশের বাধায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করতে পারেনি বিএনপি। এ সময় কর্মসূচিতে বাধা দেয়ার কারণে সরকারকে দায়ী করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, বিএনপির শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচি করতে দেয়া হয়নি। দলের নেতাকর্মীদের কোথাও দাঁড়াতে দেয়া হচ্ছে না। বিএনপি এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। মানববন্ধন কর্মসূচি পালনকালে ঢাকাসহ সারা দেশে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আর পুলিশের লাঠিচার্জে অন্তত ৬৫ জন আহত হয়েছে।
ঢাকায় গাবতলী থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত প্রধান প্রধান সড়কে মহানগর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
পুলিশি বাধার পর বেলা ১১টা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের ফটকে অবস্থান নেন বিএনপি মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব আমানউল্লাহ আমান, বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক, মহিলা দলের সভাপতি নূরে আরা সাফা ও সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির মহাসচিব শামীম আল মামুন, ইসলামি ঐক্যজোটের মহাসচিব আব্দুল লতিফ নেজামীসহ শতাধিক নেতাকর্মী। এ সময় বর্তমান সরকারকে ওয়ান-ইলেভেনের ছায়া সরকার দাবি করে বিএনপি মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার বলেন, ‘প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির নেতাকর্মীদের শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচিতে সরকারের পেটুয়া বাহিনী বাধা দিয়েছে। যেমনটি ১/১১-এ সামরিক বাহিনীর সমর্থিত বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকার করেছিলো।’ ‘আজ জনগণের কাছে স্পষ্ট হয়ে গেছে, এই সরকার বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উত্তরসূরি। একই কায়দায় বিরোধী দলকে দমন-নিপীড়ন করতে কাজ করে যাচ্ছে।’সরকারের ‘অঘোষিত নির্দেশে’ পুলিশ শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচি বানচালের অপচেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। তবে তিনি দাবি করেন, পুলিশি বাধার পরও সারাদেশে মানববন্ধন কর্মসূচি সফল হয়েছে। এজন্য নেতা-কর্মী ও দেশবাসীকে অভিনন্দন জানান খোন্দকার দেলোয়ার। মানববন্ধন কর্মসূচিতে বাধা দেওয়ার সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই, এমনকি ১৪৪ ধারাও জারি করা হয়নি। তারপরও ফুটপাতে আমাদের দাঁড়াতে দেওয়া হয়নি। পুলিশ লাঠিপেটা করেছে।বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ সারাদেশ মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে পুলিশ তাদের অনেক নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে। “সরকার গণতন্ত্রের লেবাস পরে স্বৈরতান্ত্রিক শাসন চালাচ্ছে। তারা অবৈধ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উত্তরসূরি।” বিএনপির সহসভাপতি চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, চেয়ারপাসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আবদুল মান্নান, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, মোশাররফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী, মজিবুর রহমান সারওয়ার, বিরোধী দলীয় প্রধান হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক, ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব আবদুল লতিফ নেজামী, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির মহাসচিব শামীম আল মামুনসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতারা এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
বিএনপির এই মানববন্ধন কর্মসূচিতে সমর্থন দিয়ে সারা দেশে মানববন্ধ করেছে চারদলীয় জোটের শরিক দল জামায়াতে ইসলামি, ইসলামি ঐক্যজোট, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টিসহ সমমনা দলগুলোর নেতাকর্মীরা।

রাজশাহী:
ঢাকাসহ সারা দেশে গ্রেপ্তারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে আয়োজিত রাজশাহী মহানগর বিএনপির মানববন্ধনে বাধা দিয়েছে পুলিশ। তবে এ ঘটনার প্রতিবাদে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে দলের নেতাকর্মীরা। বুধবার বেলা ১১টার দিকে নগরীর জিরো পয়েন্টে মানববন্ধনে দাঁড়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা। মাত্র কয়েক মিনিটের মাথায় পুলিশের বাধায় মানববন্ধন পণ্ড হয়ে যায়। পরে এর প্রতিবাদে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও মহানগর সভাপতি মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল সাহেব বাজার প্রদক্ষিণ করে ভুবনমোহন পার্কে সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তারা বলেন, বিরোধী দলের গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দিয়ে সরকার নিজেদেরই পতন ডেকে আনছে।
চট্টগ্রাম:
চট্টগ্রামে পুলিশি বাধার মুখে পণ্ড হয়ে গেছে বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচি। চট্টগ্রামের দেওয়ানহাট মোড়ে মানববন্ধনের প্রস্তুতিকালে পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশ লাঠিপেটা করে এবং ঘটনাস্থল থেকে ডবলমুরিং থানার পুলিশ তিনজনকে আটক করে। এছাড়া চট্টগ্রামে বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মীর মোহাম্মদ নাসিরসহ নেতাকর্মীরা মানববন্ধন করতে গেলে পুলিশ তাদের কর্মসূচি পালন করতে দেয়নি। নগরের ওয়াসা, কাজীর দেউরি, লালখান বাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় পুলিশি বাধার মুখে বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচি পণ্ড হয়ে যায়।
কুষ্টিয়া:
স্বৈরাচারী আওয়ামী লীগ সরকারের জুলুম নির্যাতন, হামলা, মামলা ও গত ২৭ জুন হরতালে গেপ্তারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তি, দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বুধবার বেলা ১১টায় কুষ্টিয়ায় জেলা বিএনপির উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। শহরের এনএস রোড থানা মোড় হতে জেলা পরিষদ পর্যন্ত এ মানববন্ধন পালিত হয়। মানববন্ধন কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুর্নবাসন বিষয়ক সম্পাদক ও কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিনসহ জেলা বিএনপির নেতারা। পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে মানববন্ধন শেষে সমাবেশ করে জেলা বিএনপির নেতারা। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী। বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অধ্যাপক আলতাফ হোসেন, হাফিজুর রহমান হেলাল, যুগ্ম সম্পাদক খোন্দকার সাজেদুর রহমান বাবলু, শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কুতুবউদ্দিন আহমেদ, সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম বাচ্চু, যুগ্ম সম্পাদক এসএম ওমর ফারুক, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রব দিলু, কুমারখালী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশীদ লিটন প্রমুখ। সভাপতির বক্তব্যে মেহেদী আহমেদ রুমী বলেন, সরকার দেশে শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। দেশ বাঁচাতে, দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব বাঁচাতে এখন সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
শেরপুর:
বুধবার দেশব্যাপী বিএনপির ডাকা মানববন্ধন কর্মসূচির অংশ হিসেবে শেরপুর জেলা বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচি পুলিশি বাধার কারণে পণ্ড হয়ে যায়। বেলা ১১ টার দিকে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে মানববন্ধনে অংশ নিতে দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা জড়ো হতে থাকে। এ সময় সদর থানা-পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের জানিয়ে দেয়, উপরের নির্দেশ রয়েছে মানববন্ধন করা যাবে না, একই সঙ্গে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলন করেন জেলা বিএনপি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম কালাম। বিএনপি নেতারা পুলিশি বাধার কারণে মানববন্ধন বাতিল হওয়ায় সরকারের প্রতি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, বর্তমান সরকার ভিন্ন প্রক্রিয়ায় পুনরাই বাকশাল কায়েমের পায়তারা করছে। অন্যায়ভাবে শান্তিপূর্ণ এই মানববন্ধন কর্মসূচির গণতান্ত্রিক অধিকারে বাধা প্রদান করে সরকার তাদের ফ্যাসিবাদী চরিত্রের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। জেলার ঝিনাইগাতি উপজেলা শিবির সভাপতি সুলতান আহম্মেদ ও জেলা জামায়াতের ২ কর্মী মোস্তফা সেলিম ও আবু বকর সিদ্দিক রতনকে বুধবার সকালে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানায়, তাদেরকে নাশকতামূলক কাজের সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
বগুড়া:
বুধবার বেলা ১২টায় বগুড়ায় বিএনপি ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবীদের শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেয়। বাধা সত্তেও বিএনপি নবাববাড়ি সড়কের দলীয় কার্যালয়ের সামনে ব্যানার নিয়ে মানববন্ধনে দলীয় নেতাকর্মীরা অংশ নেয়। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় মানববন্ধনে অংশ নেয়া বিএনপি দলীয় নেতাকর্মীদের পুলিশ বেপরোয়া লাঠি চার্জ করে। এতে দলের সাবেক এমপি হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, জেলা বিএনপির যুগ্ন-আহ্বায়ক জয়নাল আবেদীন চাঁন, শাজাহানপুর উপজেলার বিএনপি নেতা ও খরনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী হায়দার তোতা, ধুনট পৌর ছাত্রদলে সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী জনসহ ১২জন আহত হয়। এ সময় ওই রাস্তায় উত্তেজনা ও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যানবাহন চলাচল এবং দোকান-পাট বন্ধ হয়ে যায়। পরে বগুড়া বারের জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্যরা কোর্ট হাউজ স্ট্রিটে মানববন্ধন কর্মসূচির পালন করতে গেলে সেখানেও পুলিশ বাধা দেয় এবং তাদের ব্যানার কেড়ে নেয়। বগুড়া পুলিশের এএসপি আরিফুর রহমান মন্ডল জানান, বিএনপি নেতাকর্মীরা রাস্তার যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টির মাধ্যমে মানববন্ধন কর্মসূচি করার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশ তার দায়িত্ব পালন করেছে।
জয়পুরহাট:
বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জয়পুরহাট জেলা বিএনপির উদ্যোগে মানববন্ধন র্কমসূচি শুরু হলে শহরের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে পুলিশ বাধা দেয়। এর প্রতিবাদে স্থানীয় সংসদ সদস্য মোজাহার আলী প্রধান ও ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বে পৃথকভাবে নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ মিছিল শুরু করলে পুলিশ মিছিলের পেছন থেকে লাঠিচার্জ করে। এ সময় ১০ নেতাকর্মী আহত হয়। পরে নেতাকর্মীরা জেলা বিএনপির কার্যালয়ে ও থানার সামনে সমবেত হলে পুলিশ তাদের ঘেরাও করে রাখে। এদিকে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশের বাধার প্রতিবাদ জানিয়ে বিএনপির দুগ্রুপ পৃথকভাবে তাৎক্ষণিক সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সংসদ সদস্য মোজাহার আলী প্রধান, সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফা, পৌর মেয়র ফজলুর রহমান প্রমুখ। অপরদিকে শান্তিপূর্ণ এই মানববন্ধন কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিচার্জের প্রতিবাদে জয়পুরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফা তাৎক্ষণিক জয়পুরহাট প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেন।
ঝিনাইদহ:
ঝিনাইদহে দফায় দফায় পুলিশি বাধার মুখে বিএনপি ও জামায়াতের পৃথক মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বুধবার সকালে পোস্ট অফিস মোড়ে নির্ধারিত কর্মসূচি থাকলেও পুলিশি বাঁধার মুখে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়কে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। কর্মসূচিতে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র আব্দুল মালেক, বিএনপি নেতা আব্দুল মতলেব, জাহিদুজ্জামান মনা, মুন্সী কামাল আজাদ পান্নুসহ জেলা নেতারা অংশ নেয়। পুলিশ নেতাকর্মীদের মানববন্ধনে দাঁড়াতে বাধা দেয় বলে বিএনপি অভিযোগ করে। এদিকে জামায়াতে ইসলামির কেন্দ্রীয় নেতাদের মুক্তির দাবিতে শহরের হামদহ স্টান্ডে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধনে জেলা আমীর ড. মুজাম্মেল হক, জেলা সম্পাদক নূর মোহাম্মদ, শহর আমীর ছগীর আহমদসহ জেলা নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
ময়মনসিংহ:
ময়মনসিংহে পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে আজ বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। মানববন্ধন পালনকালে ৩ বিএনপি কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মানববন্ধন কর্মসূচি কারণে সকাল থেকেই ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয় বিএনপি কার্যালয়ের আশপাশে। জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে সকাল ১১টায় মানববন্ধন শুরু করলে পুলিশ বাধা দেয়। বাধা পেয়ে বিএনপি নেতাকর্মীরা রাস্তায় বসে পড়ে এবং সেখানে বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী একেএম মোশাররফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ওয়াহাব আকন্দ প্রমুখ।
গত ২৭ জুন হরতালের দিন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস-চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, সংসদ শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানিসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে ও মুক্তির দাবিতে এ কর্মসূচি ডাকা হয়।

Check Also

মিনি ওয়াক-ইন-সেন্টারের মাধ্যমে রবি’র গ্রাহক সেবা সম্প্রসারণ

ঢাকা :– গ্রাহক সেবাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মোবাইলফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড সম্প্রতি মিনি ওয়াক ...

Leave a Reply