আবারো উত্তাল কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় : নাম পরিবর্তন নিয়ে প্রশাসনের বিতর্কিত ভূমিকা : প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ শিক্ষাথীর্রা, ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন


কামরুল হাসান (কুবি), ০৪ জুলাই ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে কুমিল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় করার প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কঠোর আন্দোলনে নামছে। বিশ্ববিদ্যায়ের নাম পরিবর্তনের প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্র্থীরা ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে। শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রশাসনিক ভবনের সামনে কাঠাল তলায় এক প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। সমাবেশ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যে কোন মূল্যেই হোক তারা কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়কে সংকুচিত হতে দেবে না। শিক্ষার্থীরা এ প্রক্রিয়াকে ষড়যন্ত্রমূলক বলে আখ্যায়িত করে তা যে কোন মূল্যে প্রতিহত করার ব্যাপারে ঐক্যবদ্ধ বলে ঘোষনা দিয়েছে। সমাবেশে বক্তারা আরোও বলেন ভৌগলিক অবস্থানের কারণে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বহাল রেখেও একাধিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হতে পারে। তারা কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যাল এর নাম বহাল রেখে সরকারের কাছে এ বিশ্ববিদ্যালয়কে পূর্ণাঙ্গ স্বয়ত্বশাসিত বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলারও দাবী জানান। এ সময় তারা পূর্ব নাম বহাল রাখার ঘোষনা না পাওয়া পর্যন্ত ক্লাস এবং সেমিষ্টার ফাইনাল সহ সব ধরনের পরীক্ষা বর্জনের ঘোষনা দেন।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে ভিস্সখাতে প্রবাহিদ করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিতর্কিত ভূমিকা অবলম্বন করেছে। বিগত কয়েকদিনে ভিসি ড. আমির হোসেন খান কুবির নাম পরিবর্তনের ্িযাপারে সাংবাদিকদের নিকট দেয়া বক্তব্য অস্বীকার করেন। তিনি বিভিন্ন সময়ে বলেছিলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যায়ের নাম কুমিল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় করা হচ্ছে। এটি একনেকের সভায় এবং মন্ত্রণালয়ে পাশ হয়েছে বলেও সাংবাদিকদের জানান। তার এই বক্তব্য সম্বলিত সংবাদ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু তিনি গতকাল এ বক্তব্যকে অস্বীকার করে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, কুবির নাম পরিবর্তনের কোন খবর তিনি জানেন না, এবমন্ত্রণালয় থেকে পাওয়া চিঠির কথাও তিনি অস্বীকার করেন। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে প্রতিহত করতে তিনি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানান। তিনি বলেন, এ সম্পর্কিত কোন সংবাদ তার জানা নেই। এটি স¤পূর্ণ মিথ্যা। তিনি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নেয়ার অনুরোধ জানান।

জানা যায় ৬০ দশকের কুমিল্লায় একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহন করলে ও নানা করণে তা বিলম্বিত হতে থাকে। ৯৬ সালের দিকে আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিলে তা বাস্তবায়ন করে যেতে পারেনি। অবশেষে ২০০১ সালে বি.এন.পি জোট সরকারের আমলে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া শালবন বিহার ও ময়নামতি জাদুঘরের পাশে ৫০ একরের উপর ২০০৫ সালে ৭ফেব্র“য়ারী এক অনারম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয় সালমানপুর নামক স্থানে। একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করে ২০০৭ সালে । বর্তামানে ১১টি বিভাগে দুই সস্রাধিক শিক্ষার্থীরা অধ্যায়ন করতেছে। জোট সরকারের আমলে প্রতিষ্ঠিত হলেও বর্তমান সরকার ক্ষমতার এসে নাম পরিবর্তনের ইস্যু সামনে নিয়ে এসেছে। তারই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের ২৭ ফেব্র“য়ারী শিক্ষা উপদেষ্টা ড. আলাউদ্দিন আহম্মদ হল উদ্বোধন করতে এসে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের ইংগিত দেন। এর আগেও কুমিল্লা সদর -৬ আসনের এমপি আকম বাহাউদ্দিন বাহার জাতীয় সংসদে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যায়ে রূপান্তরের প্রস্তাব উপস্থাপন করেন। তারই ধারাবাহিকতায় সরকার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বলে একাধিক নির্ভর যোগ্য সূত্রে জানা গেছে। সরকারের নির্ভরযোগ্য সূত্র থেকে জানা যায়, একনেকের বৈঠকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত একটি বিল নিয়ে আলোচনার সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যায়ের নাম কীভাবে পরিবর্তন হলো এবং কুমিল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম কিভাবে বাদ গেল তা খতিয়ে দেখতে বলেন । এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে তদন্ত করে রিপোর্ট দিতে বলা হয়।

এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। সর্বশেষ খবরে জানা গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় গাছ ফেলে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশ পথে অগ্নি সংযোগ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন অব্যাহত রেখেছে। প্রয়োজন বোধে শিক্ষার্থীরা আমরণ অনশন ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধের মত কঠোর কর্মসূচী গ্রহণ করে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্রের সমোচিত জবাব দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

Check Also

কুবি সাংবাদিক সমিতির অভিষেক অনুষ্ঠান পালিত

মো শরীফুল ইসলাম,কুবি :– বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা ও স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচনের মধ্য দিয়ে ...

Leave a Reply