মুরাদনগরে গৃহবধুকে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মামলা || ২ ভাসুর ও জা পলাতক

মুরাদনগরে নিহত গৃহবধু শিউলি রানী আচার্যের ২ অবুঝ সন্তান অন্তরা ও বিপ্লব তাদের মা হারিয়ে শুধুই নির্বাক, ছবিটি বৃহস্পতিবার নানা সুধীর চন্দ্র আচার্যের সাথে তোলা।
মো.হাবিবুর রহমান, ০২ জুলাই ২০১০ (কুমিল্লাওয়েব ডটকম) :
মুরাদনগর উপজেলার বাখরনগর (থোল্লা) গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ২ সন্তানের জননী গৃহবধু শিউলি রানী আচার্যকে (২৭) আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে বৃহস্পতিবার দুপুরে ভাসুর ও জা’র বিরুদ্ধে মুরাদনগর থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। পুলিশ ওই গৃহবধুর লাশ উদ্ধার পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে। ঘটনার পর থেকে ২ভাসুর ও জা পলাতক থাকায় তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।
সরেজমিন পরিদর্শনকালে এলাকাবাসী জানায়, বাখরনগর (থোল্লা) গ্রামের রাজেন্দ্র রঞ্জন আচার্য তার ৩ ছেলের মধ্যে ২ ছেলে ভানু রঞ্জন আচার্য ও কানু রঞ্জন আচার্যকে সকল সম্পত্তি দিয়ে দেয়। অপর ভাই তপন রঞ্জন আচার্যকে কোন সম্পত্তি না দেয়ায় এ নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। উক্ত বিষয়টি সমাধান করার জন্য স্থানীয় সাহেব-সর্দারগন বেশ কয়েকটি বৈঠক করলেও রাজেন্দ্র রঞ্জন আচার্য, তার ২ ছেলে ভানু রঞ্জন আচার্য ও কানু রঞ্জন আচার্যের একগুয়েমীর কারনে সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে প্রায়ই বড় ভাইদের সাথে ছোট ভাইয়ের ঝগড়া হতো। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বুধবার সকালে ছোট ভাই তপন রঞ্জন আচার্যকে বড় ভাই ভানু রঞ্জন আচার্য ও কানু রঞ্জন আচার্য মারতে থাকে। তখন তপন রঞ্জন আচার্যের স্ত্রী শিউলি রানী আচার্য এগিয়ে গেলে তাকেও ব্যাপক মারধর করলে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরে সে সুস্থ্য হয়ে বিকেলের দিকে ক্ষোভে দু:খে গলায় ফাসি লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। এ সময় এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুমিল্লা নেবার পথে শিউলি রানী আচার্য রাস্তায় মারা যায়। এ ব্যাপারে থানায় খবর দিলে এস আই আলমগীর হোসেন ও এস আই সাজেদুল ইসলাম বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাস্থলে পৌঁেছ লাশের সুরতহাল করেন।
এ ঘটনায় শিউলি রানী আচার্যের বাবা ব্রাম্মন চাপিতলা গ্রামের সুধীর চন্দ্র আচার্য বাদী হয়ে ভানু রঞ্জন আচার্য ও তার স্ত্রী স্বর্না রানী আচার্যের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে ৩০৬ ধারায় মুরাদনগর থানায় একটি মামলা (যার নং-০২) রুজু করেন। তবে পুলিশ এ রিপোর্ট রেখা পর্যন্ত আসামীরা পলাতক থাকায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মুরাদনগর থানার এস আই সাজেদুল ইসলাম জানান, আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
জানা যায়, নিহত শিউলি রানী আচার্যের ১২ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। তার মেয়ে অন্তরা রানী আচার্য (৯) ও ছেলে বিপ্লব রঞ্জন আচার্য (৬) স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪র্থ ও নার্সারীতে লেখাপড়া করছে। এলাকাবাসী উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং ঘটনায় জড়িতদের খুজেঁ বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply