বিএনপির ডাকে হরতাল চলাকালে মিছিলে হামলা : শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি আহত


ঢাকা, ২৭ জুন, (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :
দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় আহত ও গ্রেপ্তারের মধ্যে দিয়ে সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল কর্মসূচি পালন করছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। গ্যাস-পানি-বিদ্যুতের চাহিদা পূরণসহ ১১টি দাবিতে বিএনপি এ হরতালের ডাক দিয়েছে। প্রধান বিরোধী দল বিএনপির ডাকা এ হরতালে সমর্থন দিয়েছে জামায়াতসহ সাবেক চারদলীয় জোটের অন্যান্য শরিক দলগুলো। সাড়ে ৩ বছর পর দেশে কোনো রাজনৈতিক দল আবার হরতাল কর্মসূচি পালন করছে।
বিএনপির ডাকা এই হরতাল কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ মাঠে নেমেছে চারদলীয় জোটের শরিক জামায়াতে ইসলামী, ইসলামী ঐক্যজোট, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি), জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা), ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (ন্যাপ) সহ সমমনা সাতটি দলের নেতাকর্মীরা। হরতাল পালনে বিএনপি রাজধানীর ঢাকায় পিকেটিংয়ের জন্য ৩০টি স্পট চিহ্নিত করেছে। এসব স্পটে দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের নেতৃত্বে কর্মীরা মিছিল-সমাবেশ করছেন বলে জানিয়েছেন রিজভী আহমেদ।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন পৃথক পৃথক বিবৃতিতে হরতাল সফল করার জন্য দলীয় নেতাকর্মী, সমর্থক ও সব শ্রেণী-পেশার মানুষসহ সাধারণ জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
হরতাল উপলক্ষে রাজধানীতে বিডিআর, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন এবং র‌্যাবসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অন্তত ১০ হাজার সদস্য মোতায়েন রয়েছে।
বিএনপির দপ্তর সম্পাদক রহুল কবির রিজভী বলেন, “সকাল ৬টায় হরতাল কর্মসূচি শুরু হয়েছে। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলবে। আমরা সকালে কাকরাইলের কাছে মিছিল করেছি।”
সকাল সাড়ে ৭টায় বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমান উল্লাহ আমান, দপ্তর সম্পাদক রিজভী আহমেদের নেতৃত্বে একটি মিছিল নয়া পল্টনে দলের কার্যালয়ের দিকে যেতে চাইলে নাইটেঙ্গলের কাছে পুলিশ ব্যারিকেড দিয়ে তাদের থামিয়ে দেন।নাইটেঙ্গলের কাছে কাঁটাতারের বেষ্টনী দিয়ে নয়া পল্টনের পুরো সড়ক অবরোধ করে রেখেছে পুলিশ। বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সড়কে।রিজভী আহমেদ জানান, হরতালের খবর পর্যবেক্ষণে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে একটি কনট্রোল রুম খোলা হয়েছে।
প্রধান বিরোধী দল বিএনপির ডাকে হরতাল চলাকালে রাজধানীর কয়েকটি পয়েন্টে ছাত্রলীগ ও পুলিশ বিএনপির মিছিলে হামলা করেছে। রাজধানীর তেজগাঁও টিসিবির মোড়ে হরতালের সমর্থনের বিএনপি নেতা-কর্মীরা মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়।
সকালে শাহবাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে হরতালের পক্ষে সমাবেশের সময় পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় হরতাল সমর্থকরা ব্যাপক ভাঙচুর করে। শাহবাগে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চত্বরে বিএনপি নেতা ও সংসদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির নেতৃত্বে হরতালের সমর্থনে সমাবেশ করার সময় হরতাল বিরোধীদের হামলায় সমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়। হরতাল বিরোধীরা লাঠিসোটা ও রড নিয়ে সমাবেশের ওপর হামলা চালায়। এতে শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি ও ইডেন কলেজ ছাত্রদল নেত্রী পপিসহ ১৫ জন আহত হয়। গুরুতর আহত এ্যানি ও পপিকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ইডেন কলেজের ছাত্রদল নেত্রী মৃধাসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশী বাধা উপেক্ষা করে মিছিল করার চেষ্টা করলে ঘটনাস্থল থেকে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক আব্দুল মান্নান ও অ্যাডভোকেট আহমেদ আজমসহ চারজনকে আটক করে পুলিশ।ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আলিমুজ্জামান খান আলী বলেন, “আমরা শান্তিপূর্ণ হরতালের পক্ষে মিছিল করছিলাম। তখন ছাত্রলীগ ও পুলিশ আমাদের ওপর হামলা চালায়। এরপর আমাদের কয়েকজন কর্মীকে আটক করে নিয়ে যায়।”
বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শাহবাগে নেতা-কর্মীদের উপর হামলার নিন্দা জানিয়ে বলেন, এ হামলার মাধ্যমে সরকারদলীয়রা হরতালে বাধা সৃষ্টি করতে চাইছে। অন্যদিকে, মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বরে হরতালের সমর্থনে মিছিলের সময় বিরোধীদের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।
সকালে হরতালের সমর্থনে মধ্য বাড্ডায় মিছিল বের করলে পুলিশ লাঠিপেটা করে মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে কমিশনার এমএ কাইয়ূমসহ কমপকেষ ১৫ জন আহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চারজনকে গ্রেপ্তার করে।
মালিবাগ-মৌচাক এলাকায় বিএনপি নেতা মঈন খানের নেতৃত্বে বিএনপির মিছিলে পুলিশ হামলা চালায়। এতে আহত হয় কমপক্ষে ১০ জন।
হরতালকে কেন্দ্র করে গত রাত থেকে এ পর্যন্ত শুধু রাজধানীতেই কমপক্ষে ১৩১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
হরতালে সম্ভাব্য সকরকমের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে মহানগর পুলিশ। রাজধানীর মুক্তাঙ্গন, পল্টন, মালিবাগ, সচিবালয়, মগবাজার, মতিঝিল, ধানমণ্ডিসহ মোট সারে ৪ শ’ পয়েন্টে মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ সদস্যদের। পুলিশের পাশাপাশি দায়িত্বে রয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব)’র সদস্যরাও। রাজধানীর প্রধান সড়কগুলোতে ইতোমধ্যেই বসানো হয়েছে ব্যারিকেড। গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোতে চলছে পুলিশের তল্লাশী।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply