মাহমুদুর রহমানকে সরকার হত্যা করতে বদ্ধপরিকর : খালেদা জিয়া

ঢাকা, ১৩ জুন (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :
দৈনিক ‘আমার দেশ’ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে সরকার হত্যা করতে বদ্ধপরিকর বলে মন্তব্য করেছেন বিরোধীদলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। খালেদা জিয়া বলেন, তাকে হত্যা করতে রিমান্ডের নামে নিষ্ঠুর ও পৈশাচিক কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। রবিবার গুলশান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন এ অভিযোগ করেন।তিনি বলেন, ‘মাহমুদুর রহমানকে রিমান্ডে নিয়ে পৈশাচিক নির্যাতনের জন্য শুধু হেফাজতে থাকা কর্মকর্তারাই দায়ী নন, সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ দায় এড়াতে পারবেন না।’
খালেদা জিয়া অভিযোগ করে বলেন, আদালতে দেয়া বক্তব্য প্রমাণ করে সরকার মাহমুদুর রহমানকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য বদ্ধপরিকর। অথচ এ লোমহর্ষক ঘটনার পরেও তাকে আবার নির্যাতনের জন্য রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে। দেশের জনগণকে এ প্রতিহিংসা ও ঘৃণ্য রাজনীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।
আদালতে দেয়া মাহমুদুর রহমানে বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, রিমান্ডের নামে মাহমুদুর রহমানকে চোখ বেঁধে বিবস্ত্র করে পিটিয়ে অজ্ঞান করে ফেলা হয়। মাহমুদুর রহমানের ওপর নির্যাতনের সংবাদ প্রকাশে বিরত থাকার জন্য সরকার গণমাধ্যমকে হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়াই গোয়েন্দা পুলিশ মাহমুদুর রহমানকে আবারো ৪ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে।
বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, বর্বর ও লুটপাটের সাম্রাজ্য কায়েম করা সরকারের একমাত্র উদ্দেশ্য। নির্যাতন, গুপ্তহত্যা এবং গোয়েন্দা দিয়ে মামলা সাজানো ও নির্যাতনের সবক তারা মইনুদ্দিন-ফখরুদ্দীন সরকার থেকে পেয়েছে। বাকশালী ঘোড়া জনগণের ওপর সওয়ার হয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সরকার ইতিমধ্যে একাধিক বেসরকারি টিভি চ্যানেল বন্ধ করেছে। অপছন্দের টকশোগুলো বন্ধ করে দিয়ে সংবাদ ও মতামত প্রকাশ ফ্যাসিবাদী কায়দায় নিয়ন্ত্রণ করছে। ফ্যাসিবাদ নির্মূলে গণআন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, অন্যথায় মাহমুদুর রহমানের মতো আগামীতে নির্যাতনের তলোয়ারে যে কারো মাথা কাটা পড়তে পারে।
ফ্যাসিস্টদের মদদ দেয়া থেকে কর্মকর্তাদের বিরত থাকার আহ্বান জানিয়ে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, ‘সংবিধান ও আইনের বাইরে কাজ করবেন না। এর পরিণাম ভালো হবে না।’মনে রাখবেন, কোনো সরকারই শেষ সরকার নয়।’
প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে দলের মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন, স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদ, রফিকুল ইসলাম মিয়া, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন, ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সানাউল্লাহ মিয়া, বিএনপি সাংসদ মাহবুবউদ্দিন খোকন, নীলুফার চৌধুরী মনি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...