লন্ডনে কাউন্সিলর হলেন বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপ

image_ স্টাফ রিপোর্টারঃ
বঙ্গবন্ধুর নাতনি এবং শেখ রেহানাকন্যা টিউলিপ সিদ্দিক লন্ডনের একটি কাউন্সিলের কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার জাতীয় নির্বাচনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন কাউন্সিল নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ শুক্রবার রাত থেকে শুরু হয়েছে।
টিউলিপ লেবার পার্টি থেকে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন বাঙালিপাড়া হিসেবে খ্যাত পূর্ব লন্ডনের বাইরের ক্যামডেন বারার রিজেন্ট পার্ক ওয়ার্ড থেকে। এদিকে পূর্ব লন্ডনের টাওয়ার হেমলেটস বারার নির্বাচনে এবারও বাঙালিদের জয়জয়কার। এখানে লেবার পার্টি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে মোট ২৬ জন বাঙালি কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। কনজারভেটিভ পার্টি ও রেসপেক্ট পার্টি থেকে নির্বাচিত হয়েছেন আরো দুজন বাঙালি কাউন্সিলর।
জাতীয় নির্বাচনে কম আসন পেলেও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে সারা দেশেই সার্বিকভাবে ভালো করেছে লেবার পার্টি। শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ১৬৪টি কাউন্সিল বারার মধ্যে ১৫৭টির ঘোষিত ফলাফলে লেবার পার্টি গতবারের চেয়ে ৪১৬ জন কাউন্সিলর বেশি পেয়েছে। এবার তাদের নির্বাচিত কাউন্সিলরের সংখ্যা দুই হাজার ৮৫৭ জন। অন্যদিকে কনজারভেটিভ পার্টি এবার ১২১ জন কাউন্সিলরকে হারিয়েছে। এবার তাদের নির্বাচিত কাউন্সিলরের সংখ্যা তিন হাজার ৩৬৪ জন। মোট কাউন্সিলরের সংখ্যা কম হলেও গুরুত্বপূর্ণ কাউন্সিলগুলো লেবার পার্টির দখলেই রয়েছে।
এদিকে জাতীয় নির্বাচনে ঝুলন্ত পার্লামেন্ট হলেও গতকাল থেকেই সরকার গঠনের আলোচনা শুরু হয়েছে। রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ প্রধান তিনটি পার্টি কনজারভেটিভ, লেবার ও লিবারেল ডেমোক্রেটিককে সমঝোতার মাধ্যমে সরকার গঠনের আহ্বান জানিয়েছেন। রানি বলেছেন, পার্টিগুলোই সিদ্ধান্ত নিক কারা সরকার গঠন করবে। লেবার পার্টির নেতা গর্ডন ব্রাউন কনজারভেটিভ ও লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির সমন্বয়ে সরকার গঠনকে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ওই দুই দল সমঝোতায় ব্যর্থ হলে লেবার পার্টি জাতীয় স্বার্থে সরকার গঠনের উদ্যোগ নেবে। কনজারভেটিভ পার্টি এবং লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি নিজ নিজ কোরামে সরকার গঠনে সমঝোতা বিষয়ে করণীয় নির্ধারণে আলোচনা শুরু করেছে। নিজেদের আলোচনা শেষ হলেই দুই পার্টির মধ্যে আলোচনা শুরু হবে।
টিউলিপ প্রসঙ্গঃ-
ক্যামব্রিজের গ্র্যাজুয়েট টিউলিপ সিদ্দিক স্থানীয় লেবার পার্টির সঙ্গে আগে থেকেই জড়িত। একইসঙ্গে কাজ করছেন ব্ল্যাক এশিয়ান অ্যান্ড মাইনরিটি এথনিকের (বিএএমই) কর্মকর্তা হিসেবে। তাঁর ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত তিনজন কাউন্সিলরের সবাই লেবার পার্টির। তাঁর অবস্থান তৃতীয়। তিনি ভোট পেয়েছেন এক হাজার ৯৭৪টি। প্রথম হয়েছেন নাশ আলী, তিনি পেয়েছেন দুই হাজার ৩৩৪টি ভোট। দ্বিতীয় হ্যাদার জনসন পেয়েছেন দুই হাজার ১৭১ ভোট।
লন্ডনে আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, কাউন্সিল নির্বাচনে অংশ নিয়ে বঙ্গবন্ধুর উত্তরসূরি টিউলিপ ব্রিটিশ রাজনীতিতে সক্রিয় হলেন। এখন আস্তে আস্তে তিনি সামনে অগ্রসর হবেন। আর বিজয়ে উল্লোসিত টিউলিপ বলেছেন, তিনি সবে রাজনীতি শেখা শুরু করেছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর একজন উত্তরসূরি হিসেবে রাজনীতির বাইরে থাকতে পারেন না তিনি।টাওয়ার হেমলেটের নির্বাচিত কাউন্সিলরদের মধ্যে রয়েছেন আব্দুল আসাদ, শাহেদ আলী, আমিনুর খান, কবির আহমেদ, আব্দুল চুন্নু মুকিত, শফিকুল হক, অলিউর রহমান, আবদাল উল্লাহ, হেলাল উদ্দিন আব্বাস, সেলিনা আক্তার, লুৎফর রহমান, আলিবর চৌধুরী, রাবিনা খান, হারুন মিয়া, মাইয়ুন মিয়া, খসরু উদ্দিন, মতিনুজ্জামান, রফিক উদ্দিন আহমদ, লুৎফা বেগম, অহিদ আহমেদ, রাজিব আহমদ, সিরিয়া খাতুন, খালিস আহমদ, রানিয়া খান, হেলাল উদ্দিন, আনোয়ার খান, মিজানুর রহমান চৌধুরী ও সিরাজুল ইসলাম।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...