দেশে বিনিয়োগ বান্ধব পরিবেশ নেই : খালেদা জিয়া

khaleda-zia
স্টাফ রিপোর্টার :
শনিবার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে মহান মে দিবস উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের নেতা-কর্মীরা সাক্ষাৎ করতে গেলে বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া অভিযোগ করেন বর্তমান সরকার বিনিয়োগ বান্ধব কোনো পরিবেশ তৈরি করতে পারছে না
খালেদা জিয়া বলেন, “এ সরকার দেশের শ্রমজীবী মানুষের কল্যাণে কিছুই করেনি। শ্রমিক ছাঁটাই চলছে। কলকারখানা বন্ধ হয়ে যাচেছ। বিনিয়োগ কমে গেছে, কারণ দেশে বিনিয়োগ বান্ধব কোনো পরিবেশ নেই।”
এর আগে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ শাখার নবগঠিত কমিটির নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে খালেদা জিয়া বলেন, “আমরা এখন জনগণের সমস্যা নিয়ে আন্দোলনের কর্মসূচি দিচ্ছি। সময়মত সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনের কর্মসূচি দেওয়া হবে। সবাইকে এখন থেকে সেই আন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে।” তিনি সারাদেশে শ্রমিক নির্যাতন, ছাঁটাই ও বরখাস্তের কঠোর সমালোচনা করে তা বন্ধের দাবি জানান।
খালেদা জিয়া আগামী ৩ মে নির্বাচন কমিশন অভিমুখে মিছিল এবং ৫ মে রাজশাহী, ১২ মে বরিশাল ও ১৯ মে ঢাকায় বিভাগীয় সমাবেশের কথা উল্লেখ করে বলেন, “সরকার জনগণের কাছে দেওয়া কোনো প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি। তারা সবক্ষেত্রে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে।”
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বিএনপিকে বিভক্ত করা কথা স্মরণ করে খালেদা জিয়া বলেন, “জরুরি অবস্থার সময়ে আমাদের সংগঠন সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এজন্য বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনগুলোকে আমরা সক্রিয় ও সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করার কাজে হাতে নিয়েছি।”
ভোলা-৩ আসনের উপনির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের ব্যর্থতার সমালোচনা করে তিনি বলেন, “এই নির্বাচন সুষ্ঠু করার সুযোগ এসেছিলো নির্বাচন কমিশনের। এটি সুষ্ঠু হলে সরকার উৎখাত হতো। কিন্তু ইসি ও সরকার এক্ষেত্রে চরমভাবে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে।”
অনুষ্ঠানে দলের মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাধারণ সম্পাদক শরফত আলী সপু, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল বারী বাবু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
বিরোধী দল সমর্থক শ্রমিক সংগঠন জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল অভিযোগ করেছে, সরকার চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে এখন শ্রমিক ছাঁটাই করছে।
মে দিবস উপলক্ষে শনিবার আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সংগঠনের সভাপতি নজরুল ইসলাম খান নির্যাতন ও ছাঁটাইয়ের বিরুদ্ধে শ্রমিকদের প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানিয়েছেন।
সকালে নয়া পল্টন থেকে মে দিবসের শোভাযাত্রা বের করে শ্রমিক দল। লাল পতাকা হাতে কয়েক হাজার শ্রমিকের সে শোভযাত্রা বিজয় নগর হয়ে মুক্তাঙ্গনে গিয়ে শেষ হয়।
শোভাযাত্রা শুরুর আগে এক সমাবেশে নজরুল বলেন, “সরকার নির্বাচনের আগে প্রতি ঘরে একজন করে মানুষকে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। এখন ক্ষমতায় গিয়ে সেই প্রতিশ্র”তির কথা ভুলে গেছে। বরং উল্টো ছাঁটাই চলছে।”তবে কী পরিমাণ শ্রমিক ছাঁটাই হয়েছে এবং তারা কোন শিল্পের, তা স্পষ্ট করেননি তিনি।
শ্রমিক দল সভাপতি বলেন, দেশে বিনিয়োগ নেই। কলকারখানা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। লাখ লাখ শ্রমিক বেকার হচ্ছে। বিদেশ থেকেও আমাদের শ্রমিকরা চাকরি হারিয়ে দেশে ফিরে আসছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে শ্রমিক সমাজকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
সমাবেশে চট্টগ্রামের শ্রমিক নেতা এমএ গফুরের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়। শুক্রবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
সমাবেশ থেকে শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি ৫ হাজার টাকা নির্ধারণ, অবাধ ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার, নিরাপদ কর্মক্ষেত্র, বন্ধ কলকারখানা চালুর দাবি জানানো হয়।
শোভাযাত্রায় অংশ নেন শ্রমিক দলের সিনিয়র সহসভাপতি আবুল কাশেম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জাফরুল হাসান, কেন্দ্রীয় নেতা নূরুল ইসলাম খান নাসিম, ফয়েজ মিয়া, মো. মহিউদ্দিন, আবদুস সোবহান প্রমুখ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...