সরকার যে দিকে নড়ে সিইসিও সেদিকে নড়েন, সরকারের একেবারেই জনপ্রিয়তা নেই : বিএনপির মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন

bnp logo
স্টাফ রিপোর্টার :
ভোলা-৩ উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় গতকাল বিএনপির প্রার্থী হাফিজউদ্দিন আহমেদের প্রধান নির্বাচন সমন্বয়কারী সাবেক সাংসদ নাজিম উদ্দিন আলমসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। অপরদিকে উপনির্বাচনে পরাজয় আঁচ করতে পেরে বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা তোফায়েল আহমেদ। এ ঘটনার প্রতিবাদে বিএনপি আজ শুক্রবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সেই সংবাদ সম্মেলনেই বিএনপির মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন বলেছেন, বিএনপি ভোলা-৩ উপনির্বাচন ছাড়তে চায় না। তিনি অভিযোগ করেন, সরকারের একেবারেই জনপ্রিয়তা নেই। আর এ কারণেই সরকার নির্বাচন কমিশনকে কাজে লাগিয়ে উপনির্বাচনে জিতে জনপ্রিয়তা প্রমাণের চেষ্টা চালাচ্ছে। সরকারের এ ধরনের কর্মকাণ্ড কোনোভাবেই মেনে নেওয়া হবে না বলেও তিনি জানান।
দলের মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন শুক্রবার বলেছেন, “আওয়ামী লীগ কূটকৌশল করে বিএনপিকে নির্বাচন থেকে সরানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। কিন্তু এসব করে বিএনপিকে সরানো যাবে না। আমরা নির্বাচন করবো, করতে চাই।” “এ নির্বাচনকে একটি টেস্ট কেস হিসেবে আমরা দেখছি”, বলেন তিনি। তাই “ফেয়ার টেস্ট” হতে দিন। দেশ-বিদেশ থেকে পর্যবেক্ষক আসতে দিন।’ তিনি বিএনপির আমলে অনুষ্ঠিত মাগুরা উপনির্বাচনকে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন উল্লেখ করে বলেন, ‘এমন একটি নির্বাচনের পরও একে ইস্যু করে আওয়ামী লীগ সংসদ বর্জন ও সংসদ থেকে পদত্যাগ করেছিল।’ আর এবারের নির্বাচনের আগে সরকার ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করার পরও বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।
আগামী ২৪ এপ্রিল ভোলা-৩ (লালমোহন-তজুমদ্দিন) আসনে উপনির্বাচন হবে। দলীয় প্রার্থী মেজর হাফিজউদ্দিন আহমেদের পক্ষে প্রচার চালাতে গিয়ে বৃহস্পতিবার হামলার শিকার হন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা নাজিমউদ্দিন আলম।
এরপর বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, “এ অবস্থায় আমরা নির্বাচনে থাকবো কি না- সে বিষয়টি নতুন করে ভেবে দেখা হবে।” বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়াও বলেন, “অবিলম্বে ভোলা-৩ আসনে সেনা মোতায়েন করে ভয়ভীতিমুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি না করা হলে এবং সরকার এক তরফাভাবে নিজের স্বার্থে নির্বাচন করলে তাদের বিরুদ্ধে দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে তোলা হবে।”
খোন্দকার দেলোয়ার অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচনের আচরণবিধি মানছে না। আওয়ামী লীগের কর্মীদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে এলাকার লোকজন ভোটকেন্দ্রে যেতে পারবে না বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন। তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও দুই নির্বাচন কমিশনারকে ভোলা গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভোটকেন্দ্রগুলো চিহ্নিত করার আহ্বান জানান।
নির্বাচন কমিশনকে উদ্দেশ করে খোন্দকার দেলোয়ার বলেন, সেনাবাহিনী নামানোর ক্ষমতা আপনাদের আছে। সেই ক্ষমতা কেন বাক্সবন্দী করে রেখেছেন? আর এই সুযোগে সন্ত্রাসীরা ওই এলাকা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। সর্বশেষ সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী সঠিক ভূমিকা পালন করেনি বলেই বিএনপি নির্বাচনে হেরেছে; বিএনপির পক্ষ থেকে এমন কথা বলা হলেও এই নির্বাচনে কেন সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি করছেন?—এমন প্রশ্নের জবাবে খোন্দকার দেলোয়ার বলেন, ‘সেনাবাহিনী যদি এখনো আগের মতো চরিত্র ধরে রাখে তাহলে জনগণের কিছু করার নেই।’
তবে নির্বাচন কমিশন ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে জানিয়ে নির্বাচন কমিশনার এম সাখাওয়াত হোসেন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, সংঘাত হলে ভোলা-৩ আসনে উপনির্বাচন স্থগিত করে দেওয়া হবে।
ভোলায় সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য কার্যকর ব্যবস্থা নিতে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) প্রতি আহ্বান জানান দেলোয়ার। সেনা মোতায়েনের দাবি আবারো জানান তিনি, যদিও ইসি বৃহস্পতিবারও বলেছে, সেখানে সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই।
ইসির সমালোচনা করে দেলোয়ার বলেন, “নির্বাচন কমিশনের সাংবিধানিক ক্ষমতা রয়েছে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া। আমরা বিএনপির পক্ষ থেকে বার বার তার কাছে আবেদন ও দরখাস্ত করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত কমিশন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। তাদের (ইসি) এখনো বলছি, নির্বাচন বিঘি�ত করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে- আপনারা ব্যবস্থা নিন।”
ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন পেছানোর সমালোচনা করে বিএনপির মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন বলেন, “কিছু দিন আগে তিনিই (সিইসি) বললেন, ১৮ এপ্রিল তফসিল ঘোষণা দেবেন। এখন বলছেন, পেছানো হবে। সরকার যে দিকে নড়ে, সিইসিও সেদিকে নড়েন। তার কোনো নিরপেক্ষতা নেই।”
বিদ্যুৎ-পানি-গ্যাস সঙ্কটের জন্য বিএনপি সরকার দায়ী- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ বক্তব্য খণ্ডন করে দেলোয়ার বলেন, “এখন সব ব্যর্থতার দায় দেবেন আমাদের ওপর, তা গ্রহণযোগ্য নয়। এসব সমস্যা সমাধানের জন্যই আপনারা ক্ষমতায় এসেছেন।”
নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ওই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মীর মোহাম্মদ নাসিরউদ্দিন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দপ্তর সম্পাদক রিজভী আহমেদ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আবদুস সালাম প্রমুখ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...