যুদ্ধাপরাধ বা মানবতাবিরোধী অপরাধ বলতে যা বোঝায় তার সঙ্গে জামায়াতে ইসলামীর কারও কোনো সম্পর্ক ছিল না : নিজামী

nizami
এস জে উজ্জ্বল :
মগবাজারের আল-ফালাহ মিলনায়তনে শুক্রবার অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর জেলা আমির সম্মেলনে উদ্বোধনী বক্তব্যে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামী বলেন, ‘১৯৭১ সালে জামায়াতের রাজনৈতিক অবস্থান ভিন্ন ছিল। এ নিয়ে কারও কথা থাকতে পারে, পক্ষে-বিপক্ষে মতও থাকতে পারে। কিন্তু যুদ্ধাপরাধ বা মানবতাবিরোধী অপরাধ বলতে যা বোঝায় তার সঙ্গে জামায়াতে ইসলামীর কারও কোনো সম্পর্ক ছিল না, সম্পর্ক থাকার কথা প্রমাণ করার সাধ্য কারও নেই।’ নিজামী অভিযোগ করেন, ‘ওয়ান ইলেভেনের সরকারের আমলেই ইসলামি রাজনীতি নিষিদ্ধ ও তথাকথিত যুদ্ধাপরাধের বিচার—এই দুটি ইস্যু সৃষ্টি করা হয়েছিল। এই দুটি ইস্যুর উত্পত্তি এক জায়গা থেকেই। বাংলাদেশকে ধর্মহীন রাষ্ট্রে পরিণত করার উদ্দেশ্যেই এই ইস্যু দুটি সৃষ্টি করা হয়েছে।’
‘সরকারের কাছে গ্যাস, বিদ্যুত্, পানি সমস্যা—এগুলো কোনো সমস্যা নয়। ইসলামি রাজনীতি নিষিদ্ধ করা ও তথাকথিত যুদ্ধাপরাধের বিচারই তাদের কাছে আসল সমস্যা।’ নিজামীর অভিযোগ, যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব পদদলিত করে বাংলাদেশকে একটি করদ রাজ্যে পরিণত করতে চায়, তারা তাদের ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যেই জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের তথাকথিত যুদ্ধাপরাধী হিসেবে অভিহিত করে অপপ্রচার চালাচ্ছে।
তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশকে একটি ইসলামি কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করার অঙ্গীকার নিয়ে আমরা রাজনীতি করি। বাংলাদেশকে ইসলামি কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য আমাদের যেমন কর্মসূচি আছে, তেমনি তা বাস্তবায়নের জন্য সত্-যোগ্য লোক তৈরি করছি। সেই জন্যই আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।’
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমির মকবুল আহমাদ, এ কে এম নাজির আহমদ, মুহাম্মদ আবদুস সুবহান, দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, সেক্রেটারি জেনারেল ও সাবেক মন্ত্রী আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামান, আবদুল কাদের মোলা, এ টি এম আজহারুল ইসলাম প্রমুখ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...