দেশব্যাপী গ্যাসের মহাসংকটকালে কোম্পানী বিভক্তি কার স্বার্থে? বাখরাবাদ গ্যাস দ্বি-খণ্ডিতকরণ প্রক্রিয়া অবৈধ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মামলা ॥ আগামীকাল শুনানী

bgsl
স্টাফ রিপোর্টার,কুমিল্লা :
বাখরাবাদকে দ্বি-খণ্ডিত করে চট্টগ্রামে কর্ণফুলী গ্যাস ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড নামে কোম্পানী আইন অমান্য করে একটি পৃথক কোম্পানী স্থাপনের প্রক্রিয়াকে অবৈধ চ্যালেঞ্জ করে কুমিল্লা প্রেসক্লাব সভাপতি বাদী হয়ে মহামান্য হাইকোর্টে রীট মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলায় বিচারক রুলনিশি জারী করে জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিবসহ ৭ জনকে ২ সপ্তাহের মধ্যে লিখিত জবাব দাখিলের জন্য নির্দেশ দেন। আগামীকাল ১২ এপ্রিল সোমবার ওই মামলার শুনানীর দিন ধার্য্য রয়েছে।
বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৮ সালে চট্টগ্রামে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সমস্যা দেখা দেয়ায় ওই সমস্যার স্বল্প মেয়াদী ও সহসা বাস্তবায়নযোগ্য সুপারিশ প্রণয়ন করার জন্য ওই সালের ৩ জুলাই বাণিজ্য উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমানকে আহবায়ক করে ১৫ সদস্যের একটি কমিটি করা হয়। গ্যাস উৎপাদন বৃদ্ধির দিকে দৃষ্টি না দিয়ে চট্টগ্রামের বাসিন্দা হওয়ায় ওই সময় ড. হোসেন জিল্লুর রহমান আঞ্চলিকতার বিষয়টি প্রাধান্য দিয়ে জনদাবীর মিথ্যা অজুহাতে গেজেট অনুযায়ী তার কার্যপরিধির তোয়াক্কা না করে বাখরাবাদ গ্যাস সিস্টেমস্ লিমিটেড (বিজিসিএল)কে বিভক্ত করে চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রামকে নিয়ে কর্ণফুলী গ্যাস ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড নামে একটি পৃথক কোম্পানী গঠনের প্রস্তাব করেন। বিজিএসএল থেকে চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রামকে পৃথক করা হলে মাত্র ৫০-৬০ মিলিয়ন গ্যাস বিক্রি করে মূল কোম্পানীটি টিকে থাকতে পারবে না মর্মে জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব ওই সময় তিতাস গ্যাস টিএণ্ডডি কোম্পানীর আশুগঞ্জসহ বি-বাড়িয়াকে বিজিএসএল’র সাথে অন্তর্ভূক্ত করে বৃহত্তর কুমিল্লা জেলা ও বৃহত্তর নোয়াখালী জেলা নিয়ে বাখরাবাদ গ্যাস ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানী গঠনের প্রস্তাব করেন। ওই প্রস্তাবটি পরবর্তীতে ২০০৮ সালের ১৯ অক্টোবর উপদেষ্টা পরিষদের সভায় অনুমোদন দেয়া হয় এবং একই সালের ১৭ নভেম্বর গেজেট নোটিফিকেশনে প্রকাশ করা হয়। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের এ ধরণের কার্যক্রম দেশের সংবিধানের ৫৮ (ডি) ধারার সুস্পষ্ট লংঘন ও ১৯৯৪ সালের কোম্পানী আইনের ১২ ধারার পরিপন্থী বলেও দাবী করেছেন আইন বিশেষজ্ঞরা। প্রসঙ্গতঃ বিজিএসএলকে বিভক্তির বিষয়ে চার দলীয় জোট সরকারের সময়ে তৎকালীন কেবিনেট সচিব ড. সাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উন্নয়ন সচিব কমিটির সভায় তা’ আলোচনার পর কোটি কোটি টাকা অপচয়ের বিষয়টি স্পষ্ট হওয়ায় বিভক্ত না করে প্রশাসনিক ও কারিগরি দক্ষতা বৃদ্ধিসহ জবাবদিহীতা নিশ্চিত করার সুপারিশ করা হয় এবং পরবর্তীতে মন্ত্রী পরিষদ সভায় বিজিএসএলকে বিভক্ত করার প্রস্তাব নাকচ করা হয়।
এদিকে, গত ২১ মার্চ কুমিল্লা প্রেসক্লাব সভাপতি রমিজ খান বাদী হয়ে জনস্বার্থে হাইকোর্টে দায়ের করা রীট মামলার প্রেক্ষিতে বিচারক বিবাদীদের প্রতি রুলনিশি জারী করেন এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকার কর্তৃক বিজিএসএলকে বিভক্তি সংক্রান্ত গৃহীত সিদ্ধান্ত এবং কোম্পানী আইন ১৯৯৪ অমান্য করে ও হাইকোর্টের অনুমতি না নিয়ে কর্ণফুলী গ্যাস ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানী’র নিবন্ধন গ্রহণ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তৎমর্মে দু’ সপ্তাহের মধ্যে জবাব দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়। আগামীকাল ১২ এপ্রিল সোমবার ওই মামলার শুনানীর দিন ধার্য্য রয়েছে বলে জানা গেছে। ওই রীট মামলা বিচারাধীন অবস্থায় কোর্টের নির্দেশ অমান্য করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও পেট্রোবাংলা কর্তৃপক্ষ কর্ণফুলী গ্যাস ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানী বাস্তবায়নে পেট্রোবাংলায় ২-৩টি সভা করে কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে বলে সূত্র জানিয়েছে।
এর আগে গত ১২ মার্চ বাখরাবাদ গ্যাস সিস্টেমস্ লিমিটেডকে বিভক্ত করে কুমিল্লাবাসীকে অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে কুমিল্লা প্রেসক্লাবে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় দেশব্যাপী চরম গ্যাস সংকটের বিষয়ে সরকারসহ জনগণের নাভিশ্বাসের চিত্র তুলে ধরা হয়। গ্যাস উৎপাদন বৃদ্ধির দিকে নজর না দিয়ে কোটি কোটি টাকা অপচয়ে বিতরণ কোম্পানীগুলোকে বিভক্ত করার প্রক্রিয়া কার স্বার্থে?- এমন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে শীঘ্রই কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি দিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে ওই সভায় বাখরাবাদ গ্যাস রক্ষা কমিটি গঠন করা হয়। এতে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী লোকজন ‘কুমিল্লাকে বাঁচাতে বাখরাবাদ রক্ষা করো’ এই শ্লোগানে দলমত নির্বিশেষে সহসাই তারা কঠোর আন্দোলনে নামছে বলে কমিটি সূত্রে জানা গেছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...