দাউদকান্দিতে আলুর বাম্পার ফলন হলেও হিমাগারের অভাবে কৃষকরা দিশেহারা

মোঃ শাকিল মোল্লা, কুমিল্লা থেকে :
কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দিতে এবার আলুর বাম্পার ফলন হলেও দাম পড়ে যাওয়ায় এবং হিমাগারের অভাবে কৃষকগণ খুব লাভবান হতে পারছেন না। অপরদিকে হোমনায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে বিএডিসি কর্তৃক নির্মিত এক হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতা হিমাগার কৃষকদের কোন কাজে আসছে না। এবার দাউদকান্দিতে ৬ হাজার ৪শ হেক্টর জমিতে আলুর আবাদ হয়েছে এবং বাম্পার উৎপাদনও হয়েছে। ৩০ শতাংশে ১ বিঘা পরিমাণ জমিতে দাউদকান্দির কৃষকগণ ৬০/৭০ মণ করে আলু পাচ্ছেন। আবহাওয়া অনুকূল থাকায় এবং পোকা-মাকরের আক্রমণ না হওয়ায় আলুর মানও এবার খুবই ভাল। প্রতি বিঘা জমি আবাদ করতে কৃষকদের খরচ পড়ছে ২০/২২ হাজার টাকা। পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি আলু এখন সাড়ে ৭টাকা থেকে ৮ টাকা দরে বিক্রয় হচ্ছে। হিমাগার মালিকগণ অন্যান্য বছর ৯০ কেজি ওজনের প্রতিবস্তা আলুর ভাড়া নিতেন ২শ ২০ টাকা আর এবার নিচ্ছেন ২ শ ৬০ টাকা করে। দাউদকান্দির কোল্ড ষ্টোরেজগুলোর ম্যানেজারগণ জানান বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি এবং শ্রমিকদের পারিশ্রমিক বেড়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ হিমাগার মালিক এসোসিয়েশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বস্তা প্রতি ৪০ টাকা ভাড়া বৃদ্ধি করে প্রতি বস্তা আলুর ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ২শ ৬০ টাকা। কোল্ড ষ্টোরেজ এর ভাড়া কমানোর ব্যাপারে কৃষকগণ সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। দাউদকান্দির ৭টি হিমাগারের ধারণ ক্ষমতা ৫৮ হাজার ৫শ ৬০ মেট্রিক টন এবার এর চেয়ে কয়েকগুন বেশি আলু উৎপাদন হওয়ায় উৎপাদিত আলু এবার সংকুলান হবে না বলে আমিরাবাদ কোল্ডষ্টোরেজ এর ম্যানেজার আঃ ছালাম জানান আলুর উৎপাদন দ্বিগুন হওয়ায় ১৫দিনের মধ্যে কোল্ডষ্টোরেজ হাউজফুল হয়ে গেছে । নৈয়ার সরকার আইস এন্ড কোল্ডষ্টোরেজে ম্যানেজার নজুরুল ইসলাম সরকার জানান অন্যান্য বছর অগ্রিম লোন দিয়ে কৃষকদের থেকে আলু আনা হতো কিন্ত এ বছর তা প্রয়োজন। আটিপাড়ার কৃষক মোতাহার মিয়া জানান ৪দিন আগে আলুর গাড়ীর সিরিয়াল দিয়েও কোল্ডষ্টোরেজে রাখতে না পাড়ে আলু নিয়ে বিপাকে। বিগত জোট সরকারের সময় এ উপজেলায় সরকারী উদ্যেগে হিমাগার নির্মাণের কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত জোট সরকারের প্রভাবশালী সাবেক কৃষিমন্ত্রী এম.কে.আনোয়ার তাঁর নিজ এলাকা হোমনা পৌর সদরে ১০কোটি টাকায় ২০০৬সালে ব্যয়ে বিএডিসি কর্তৃক আলু ও বীজ সংরক্ষণের জন্য হিমাগার নির্মাণ করেন। কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বিএডিসি হিমাগার কৃষকদের কোন কাজে আসছে না । এ ব্যাপারে বিএডিসি উপ-পরিচালক (কুমিল্লা) ইকবাল বাহার এর সাথে টেলিফোনে যোগযোগ করলে তিনি গতকাল জানান, হোমনায় বিএডিসি কর্তৃক নির্মিত হিমাগারে সম্পর্কে তিনি জানান যারা বিএডিসি বীজ আবাদ করেছ একমাত্র ঐ কৃষকরাই আলু রাখতে পারবে। হোমনা এলাকার কৃষক আদম আলী সাথে আলাপ করলে তিনি জানান এ এলাকায় আলুর তেমন আবাদ হয় না, তবে ইরি ও বুরো ধানের আবাদ সবচেয়ে বেশি।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...