কুমিল্লায় স্বাধীনতা স্মৃতি সৌধ নির্মাণের সিদ্ধান্ত

স্টাফ রিপোর্টার :
স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদ্যাপনের প্রস্তুতিমূলক সভায় কুমিল্লায় স্বাধীনতা স্মৃতি সৌধ বা স্মৃতি স্তম্ভ নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। কুমিল্লার জেলা প্রশাসক আবদুল মালেক এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন।
মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২৬ মার্চ। এদিন সাভারে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা স্মৃতি সৌধে সবাই পুস্পর্ঘ অর্পণ করে, মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদেরকে জাতি শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে। দেশের বিভিন্ন জেলায়ও স্বাধীনতা স্মৃতি সৌধে বা স্তম্ভে বা ভাস্কর্যে জনগণ পুষ্পর্ঘ অর্পণ করে। কিন্তু দুঃখভরে বলতে হয় কুমিল্লায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারেই আমাদের স্বাধীনতা দিবসে ও বিজয় দিবসে পুষ্পর্ঘ অর্পণ করতে হয়। যদিও ৫২ এর পথ ধরেই ৭১ এসেছে, তবুও শহীদ মিনার ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে এক করে দেখলে জাতির কাছে কুমিল্লাবাসীর অসচেতনতাই প্রকাশ পায়। ২৪ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লা জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে (এম.এ.বারী সম্মেলন কক্ষে) ২৬ মার্চ ২০১০ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের ‘প্রস্তুতিমূলক সভায়’ কুমিল্লাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবিটি সভায় উত্থাপন করলে জেলা প্রশাসক আবদুল মালেক কুমিল্লা বিএমএ সাধারণ সম্পাদক ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকীর প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে কুমিল্লার অসংখ্য গুণীজনও সুধীমহলের সামনে অঙ্গীকারাবদ্ধ হন যে কুমিল্লার প্রাণকেন্দ্রে একটি সঠিক স্থানে স্বাধীনতা স্মৃতিসৌধ বা স্মৃতি নির্মাণ স্তম্ভ করবেন এবং এ লক্ষ্যে একটি কমিটি গঠন করবেন। তার এই সিদ্ধান্তে কুমিল্লার সকল ডাক্তার ও কুমিল্লাবাসীর পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক আবদুল মালেককে ধন্যবাদ, শুভেচ্ছা, কৃতজ্ঞতাও প্রাণঢালা অভিনন্দন জানান বিএমএ কুমিল্লার সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...