দেবিদ্বারে মলম পাটির ২ সদস্য গ্রেফতারঃ মাইক্রোবাস আটক

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ
সোমবার সন্ধ্যায় দেবিদ্বারে এক ডাক্তারকে চোখে মলম লাগিয়ে টাকা ও মোবাইল নিয়ে পালানোর সময় ২ ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।
জানা যায়, দেবিদ্বার হারভাঙ্গা পঙ্গু হাসপাতালের স্বত্তাধিকারী ডাঃ জসিম উদ্দিনের দ্বিতীয় ছেলে ডাঃ মানসুরুল হক সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা যাওয়ার জন্য দেবিদ্বার বাস ষ্টেশন থেকে একটি মাইক্রোবাসে ওঠে। উপজেলার ভিরাল্লা নামক স্থানে গিয়ে গাড়িতে থাকা ড্রাইভারসহ ৫ মলম পাটির সদস্য ওই ডাক্তারকে চোখে মলম লাগিয়ে এবং ছুরি দিয়ে ভয় দেখিয়ে ২৮হাজার ৫০০টাকা ও একটি মোবাইল সেট রেখে ডাক্তারকে গাড়ি থেকে ফেলে দিয়ে কুমিল্লা মুখি পালিয়ে যায়। ডাঃ মানসুর ওই এলাকার এক ব্যাক্তির সহযোগিতায় দেবিদ্বার থানা পুলিশকে বিষয়টি জানায়। ওসি জাহেদুল ইসলামের নেতৃত্বে তাৎখনিক পুলিশ মলম পাটির গাড়িকে তারা করে দেবপুর ফাঁরি পুলিশদের সহযোগিতায় মলম পাটির ২ সদস্যকে গ্রেফতার ও মাইক্রোবাসটি আটক করে এবং গাড়ি থেকে মলম ও ভিকটিমের জুতা উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো- ভোলা সদর উপজেলার ধাপতা মিদ্দা বাড়ির মৃত এবাদুল হকের ছেলে খলিল ড্রাইভার (৩২) ও মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার মালমত গ্রামের মৃত শাহজাহান মিয়ার ছেলে মোঃ সোহেল (৩০)। এ ব্যাপারে ডাঃ মানসুরুল হক বাদি হয়ে দ্রুত বিচার আইনে দেবিদ্বার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ১৩, তারিখ ২৩/০২/২০১০ ইং। মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেফতারকৃতদের জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জাহেদুল ইসলাম জানান, ড্রাইভারসহ ২ জনকে গ্রেফতার ও মাইক্রোবাসটি আটক করলেও অপর তিন সদস্য রাস্তায় নেমে যাওয়ায় তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...