নারী-শিশু পাচার এবং নির্যাতন একক বিষয় নয় এর প্রতিরোধে চাই মানুষিকতার পরিবর্তন : কুমিল্লায় নারী-শিশু পাচার এবং নির্যাতন প্রতিরোধ কর্মশালায় বক্তাগণ

Traficikg copy
মোঃ মাহবুব মোর্শেদ :
নারী-শিশু পাচার এবং নির্যাতন কোন একক বিষয় নয়, এর প্রতিরোধে চাই একটু উদ্যোগ, জনসচেতনতা এবং আমাদের মানুষিকতার পরিবর্তন। জনগনের সক্রিয় অংশগ্রহণ এবং আইনের কঠোর প্রয়োগের মাধ্যমেই সমাজ থেকে নারী-শিশু পাচার এবং নির্যাতন প্রতিরোধ করা সম্ভব। গত ১৭ ফেব্র“য়ারী সকাল ৯ টায় দর্পণ সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্রের নিজস্ব কার্যালয়ে দি রয়েল ড্যানিস এ্যাম্বেসির আর্থিক সহযোগিতায় খান ফাউন্ডেশন ও দর্পণ সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্রের যৌথ উদ্যোগে নারী-শিশু পাচার এবং নির্যাতন প্রতিরোধ বিষয়ক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মোঃ আবদুর রউফ। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ মোকাদ্দছ আলী, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোসাঃ পারভীন আক্তার এবং কুমিল্লার ওসি ডিবি ফারুক আহমেদ। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন খান ফাউন্ডেশন এনজিও নেটওয়ার্ক এর কুমিল্লা জেলার আহবায়ক এবং দর্পণ সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক মোঃ মাহবুব মোর্শেদ।
কর্মশালার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দর্পণ এর নির্বাহী পরিচালক মোঃ মাহবুব মোর্শেদ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন খান ফাউন্ডেশনের প্রশিক্ষক মোঃ ছাদেক হোসেন। এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্লাস্ট এর সমন্বয়কারী এডভোকেট শামীমা আক্তার জাহান, দুঃস্থ মা ও শিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশনের পরিচালক (প্রকল্প) দিলনাঁশি মোহসেন, দৈনিক রূপসী বাংলার সিনিয়র স্টাফ রিপোটার অশোক বড়–য়া, পৌর কাউন্সিলর মোসলেম উদ্দিন, লালমাই কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মুহাম্মদ শফিকুর রহমান, ইসলামী আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ শাহ আলম, পিড্স এর নির্বাহী পরিচালক ইকরাম আহমেদ রানা, ইপসার প্রকল্প কর্মকর্তা মেজবাহ্ উদ্দীন খান, এইচডিও এর নির্বাহী পরিচালক পারভীন হাসান, নারাচৌ-র নির্বাহী পরিচালক এম এ মান্নান, আরএইচডিও-র নির্বাহী পরিচারক কাজী মাহতাব, গোমতী সমাজ কল্যান সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ আজিজুর রহমান, কালেক্টর মসজিদের পেশ ইমাম মোঃ মনিরুল ইসলাম, কান্দির পাড় মন্দির এর পুরুহিত নৃপেন্দ ভট্টাচার্য্য ও ঠাকুর শিবু চক্রবতী।
কর্মশালায় প্রধান অতিথি কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মোঃ আবদুর রউফ বলেন, নারী-শিশু নির্যাতন ও পাচার একক কোন বিষয় নয়, এর প্রতিরোধে চাই একটু উদ্যোগ, জনসচেতনতা এবং আমাদের মানুষিকতার পরিবর্তন। আমরা যদি সমাজকে সঠিক ভাবে নেতৃত্ব দিতে পারি তাহলে সমাজ অনেক দূরে এগিয়ে যাবে, সমাজ থেকে দুর্নীতি, নারী-শিশু নির্যাতন এবং পাচার বন্ধ হবে। তিনি আরো বলেন, শিশু পাচার হচ্ছে দারিদ্রের অভাবে, নারী পাচার হচ্ছে কর্মের লোভে, শিশু নির্যাতন হচ্ছে শিশু শ্রমের কারণে আর নারী নির্যাতন হচ্ছে বাল্যবিবাহ ও যৌতুকের দায়ে। তাই আসুন আমরা আমাদের মানুষিকতার পরিবর্তন করি, সচেতন হই, আমরা জাগলে সমাজ জাগবে, আর সমাজ জাগলে পুরো জাতি জাগবে এভাবে একদিন সমাজ থেকে নারী-শিশু নির্যাতন এবং পাচার প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।
কর্মশালা উপস্থাপনায় ছিলেন দর্পণ এর প্রকল্প পরিচারক ফারহানা মরিয়ম। কর্মশালার শেষে কুমিল্লায় নারী-শিশু পাচার এবং নির্যাতন প্রতিরোধের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে দর্পণ এর নির্বাহী পরিচালক মোঃ মাহবুব মোর্শেদকে সমন্বয়কারী করে ৮ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। এরা হলেন নারী নেত্রী দিলনাঁশি মোহসেন, ব্লাস্টের সমন্বয়কারী এডভোকেট শামীমা আক্তার জাহান, পৌর কাউন্সিলর মোসলেম উদ্দিন, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান, নারাচোর নির্বাহী পরিচালক এম এ মান্নান, সাংবাদিক অশোক বড়ুয়া এবং খেলাঘর কুমিল্লার সাধারন সম্পাদক আনিসুর রহম

– লেখক
নির্বাহী পরিচালক (দর্পণ সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র)

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...