আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে ভালো : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন

shahara-khatun_1
এস জে উজ্জ্বল :
মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘাতে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু এবং মঙ্গলবার ঢাকায় এক ওয়ার্ড কমিশনার ও ব্যবসায়ী খুন হওয়ার পরদিন বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেন দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে ভালো রয়েছে।
সচিবালয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকের পর সাংবাদিকরা মন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন বর্তমান পরিস্থিতিতে তিনি সন্তুষ্ট কিনা।এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি কোনো উত্তর দেননি। এর আগে সাহারা খাতুন বলেন, “অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় বর্তমান সরকারের আমলেই আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো রাখতে পেরেছি।”
মঙ্গলবার ও বুধবার দুই দিনেই রাজধানী ও এর সংলগ্ন কেরানীগঞ্জে খুন হয়েছেন ছয়জন। এদের মধ্যে ঢাকা মহানগর যুবদল (দক্ষিণ)-র সভাপতি ও ৭০ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার হাজী আহমেদ হোসেন মঙ্গলবার রাতে প্রকাশ্যে আলুবাজার এলাকায় খুন হন। পুরনো ঢাকায় দিনে দুপুরে খুন হয়েছেন চাল ব্যাবসায়ী আফিলউদ্দীন। সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করে হত্যা করে। একইদিন ভোরে খিলগাঁওয়ে ডাকাতদের হাতে প্রাণ হারান এক বৃদ্ধা। এছাড়া বুধবার সকালে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা এলাকা থেকে একসঙ্গে দু’ যুবকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তাদের ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। এর কিছুক্ষণ পর একই থানা এলাকা থেকে আরও এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়।
গত একমাস ধরে বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অস্থিরতা দেখা গেছে। এ সময়ের মধ্যে ছাত্র সংঘর্ষে দু’ জন নিহত ও শতাধিক আহত হয়েছেন।
এরমধ্যে ১৮ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের দু’পক্ষ ও ছাত্রলীগের ত্রিমুখী সংঘর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, ছাত্রদলের সভাপতি, পুলিশসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়।
২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এফ রহমান হলে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত ও কমপক্ষে ২৫ জন আহত হন। ওই ঘটনায় ইসলামের ইতিহাস বিভাগের ছাত্র আবু বকর হত্যার দায়ে এখনও কাউকে চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র মৃত্যুর ঘটনার পর ওই ঘটনাকে ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’ অভিহিত করে গত সপ্তাহে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, “এটা কোনো ব্যাপার না। এমনটি ঘটতেই পারে।” বিভিন্ন গণমাধ্যমে মন্ত্রীর এ বক্তব্য প্রকাশ পেলে দু’দিন পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় ওই বক্তব্যের একটি ব্যাখ্যা দিয়ে বলে, মন্ত্রীর বক্তব্য ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। তিনি এমনটি বলেননি।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজে ছাত্র লীগের দু-গ্রুপের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কলেজ ক্যম্পাসে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া,গুলি বিনিময় ও ককটেল চার্জের ঘটনা ঘটেছে।
১ ফেব্রুয়ারি কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে স্নাতক প্রথমবর্ষের ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে ছাত্রলীগ।
৪ ফেব্রুয়ারি ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় সাতদিনের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ।
০৭ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) সকালে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়েছে।
৮ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ ও শিবিরের মধ্যে সংঘর্ষে এক ছাত্রলীগ কর্মী নিহত ও আহত হয় অন্তত ৩০ জন।
০৯ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে চার সাংবাদিককে মারধর ও লাঞ্ছিত করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সমর্থক সংগঠন ছাত্রলীগের কর্মীরা।
এরপরও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেন দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে ভালো রয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...