শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকারীদের ফাঁসি কার্যকর

স্টাফ রিপোর্টার :
বুধবার রাত ১২টার পর থেকে ১টার মধ্যে শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকারী মহিউদ্দিন আহমেদ, বজলুল হুদা, সৈয়দ ফারুক রহমান ও সুলতান শাহরিয়ার রশিদ খান, এ কে এম মহিউদ্দিনের ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে
এর আগে আপিল বিভাগের রায় পর্যালোচনায় বঙ্গবন্ধুর পাঁচ খুনির করা আবেদন বুধবার খারিজ করেছে সর্বোচ্চ আদালত। প্রধান বিচারপতি মো. তাফাজ্জাল ইসলামের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বিশেষ বেঞ্চ সকাল সাড়ে ৯টায় খুনিদের রিভিউ আবেদন খারিজের আদেশ দেয়।
তিন দিনের শুনানিতে আসামি পক্ষ ও রাষ্ট্রপক্ষের বক্তব্য শোনার পর এ আদেশ হলো। আদালত বলেছে, শুনানিতে আসামি পক্ষ যে সব যুক্তি উপস্থাপন করেছে, তা ইতিমধ্যে আপিল বিভাগের রায়ে নিষ্পত্তি হয়ে গেছে।
ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে তাদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের নায়ক বঙ্গবন্ধু দের শাস্তি হলো।
সাজা পাওয়া এ পাঁচজনই সাবেক সামরিক কর্মকর্তা। এদের মধ্যে ফারুকের বাড়ি নওগাঁয়, শাহরিয়ারের কুমিল্লায়, বজলুল হুদার বাড়ি মেহেরপুরে এবং দুই মহিউদ্দিনের বাড়ি পটুয়াখালীতে।
গত ১৯ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত কারাবন্দি পাঁচ আসামির আপিল খারিজ করে হাইকোর্টের রায় বহাল রাখে আপিল বিভাগ। এরপর ৩ জানুয়ারি ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আবদুল গফুর আসামিদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেন। এরপর পাঁচ খুনি রিভিউ আবেদন করলে গত ২৪ থেকে ২৬ জানুয়ারি তার ওপর শুনানি হয়।
মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত অপর সাতজনের মধ্যে আব্দুর রশিদ, শরিফুল হক ডালিম, এস এইচ এম বি নূর চৌধুরী, মোসলেমউদ্দিন, রাশেদ চৌধুরী ও আব্দুল মাজেদ বিদেশে পালিয়ে আছেন। তাদের গ্রেপ্তারে ইন্টারপোলের পরোয়ানা রয়েছে। দণ্ডিত অপরজন আব্দুল আজিজ পাশা পলাতক অবস্থায় জিম্বাবুয়েতে মারা যান।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...