আজ আখেরি মোনাজাত

মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম সম্মিলন বিশ্ব ইজতেমা
মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম সম্মিলন বিশ্ব ইজতেমা
স্টাফ রিপোর্টার :
আজ আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম সম্মিলন বিশ্ব ইজতেমা। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরবি্ব ভারতের মাওলানা যোবায়েরুল হাসান। রোববার জোহর নামাজের আগে আখেরি মোনাজাত। আখেরি মোনাজাতে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সংসদে বিরোধীদলীয় নেত্রী, মন্ত্রী ও সাংসদ এবং পদস্থ সরকারি কর্মকর্তারা অংশ নেবেন।
আখেরি মোনাজাতে শরিক হতে আগেভাগেই আসতে শুরু করেছেন মুসলি্লরা। তুরাগ নদীমুখী মানুষের স্রোত চলছে অবিরাম। তুরাগ নদীর তীরে ১৬০ একর জমির ওপর নির্মিত চটের বিশাল প্যান্ডেল শুক্রবারই পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। আশপাশের এলাকায় তিলধারণের ঠাঁই নেই। তবুও মানুষ আসছে। পুরো এলাকা পরিণত হয়েছে মানুষের মহাসমুদ্রে। যারা প্যান্ডেলে ঠাঁই পাননি তারা আশ্রয় নিয়েছেন খোলা আকাশের নিচে। নিজ উদ্যোগে পলিথিন, হোগলার পাটি বিছিয়ে বয়ান শুনছেন। কুয়াশা, শীত, ধুলো তাদের হার মানাতে পারেনি। উদ্যোক্তারা বলছেন, এবারের ইজতেমায় ৩০ লক্ষাধিক মুসলি্লর সমাগম হবে।
গতকাল ফজর নামাজের পর ভারতের মাওলানা মোহাম্মদ জমশের আলী ও বাংলাদেশের মাওলানা আবদুল মতিন বয়ান শুরু করেন। বয়ানে আরও অংশ নেন ভারতের মাওলানা আহম্মদ লাট, মাওলানা সাদ, মাওলানা যোবায়েরুল হাসান ও হাফেজ যুবায়ের, বাংলাদেশের মাওলানা আবদুল কাদির প্রমুখ।
গতকাল ইজতেমা প্রাঙ্গণে গিয়ে দেখা গেছে, ২ হাজারের বেশি মুসলি্ল ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন পেটের পীড়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাদের স্থানীয় মেডিকেল ক্যাম্পে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া রাতের শীতে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে ভিড় দেখা গেছে। গতকাল আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দুই দিনে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১২ জনে। ট্রেনের নিচে পড়ে দুটি পা হারিয়েছেন ৭৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসকরা বলেছেন, তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।
পেটের পীড়ার প্রাদুর্ভাব : ইজতেমায় আগতদের মধ্যে ডায়রিয়া, আমাশয়সহ বিভিন্ন পেটের পীড়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। গতকাল পর্যন্ত টঙ্গী হাসপাতালসহ বিভিন্ন চিকিৎসা ক্যাম্পে প্রায় ২ হাজার রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। কুমিল্লা থেকে আসা অহিদুর রহমান জানান, জনসমাগমের কারণে শীত তেমন একটা অনুভূত হচ্ছে না। তবে রাতে কুয়াশায় উপরের চট ভিজে ফোঁটায় ফোঁটায় পানি পড়ছে। এতে অনেকে বিশেষ করে বয়স্করা অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। অনেকে সর্দি, কাশি ও জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন। খাওয়ার জন্য আনা পানি ঢেকে না রাখায় এতে ধুলা-বালি পড়ছে। এই পানি পান করে এবং বাইরের দোকানের খাবার খেয়ে অনেকে পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হচ্ছেন। যারা প্যান্ডেলের ভেতরে ঠাঁই পাননি তারা এসব রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন বেশি। মুসলি্লদের জন্য সবচেয়ে বড় দুর্ভোগের কারণ বিশুদ্ধ পানির সংকট। টঙ্গী পৌরসভা ও গাজীপুর জেলা প্রশাসন এবং ইজতেমা মাঠে গভীর নলকূপের মাধ্যমে মুসলি্লদের জন্য যে পানি সরবরাহ করা হচ্ছে তা দিয়ে গোসল ও ওজুর কাজ সারা গেলেও খাওয়ার অনুপোযগী। উপায় নেই তাই বাধ্য হয়ে এ পানিই পান করছেন সবাই।
আরেক সমস্যার নাম গোসল ও শৌচাগার সমস্যা। মুসলি্লদের জন্য যে পরিমাণ পানি সরবরাহ করা হয় প্রয়োজনের তুলনায় তা খুবই কম। তার ওপর মুসলি্লর তুলনায় গোসলখানা ও শৌচাগার আরও অনেক কম। ফলে গোসল করা কিংবা প্রাকৃতিক কাজ সারার জন্য দাঁড়াতে হচ্ছে দীর্ঘ লাইনে।
যৌতুকবিহীন বিয়ে : প্রথা অনুয়ায়ী গতকাল আসর নামাজের পর অনুষ্ঠিত হয়েছে যৌতুকবিহীন বিয়ে। বরের উপস্থিতিতে কনের অভিভাবকের সম্মতিতে এ রিপোর্ট লেখা পর্ডন্ত ১৪০টি বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। বয়ান মঞ্চের পাশে এ বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। বিয়ের পর খেজুর দিয়ে মিষ্টিমুখ করানো হয়। আযোজকরা জানিয়েছেন, এবার শতাধিক বিয়ে সম্পন্ন হবে।
আরও ৬ জনের মৃত্যু : ইজতেমায় আসা আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দুই দিনে ১২ জনের মৃত্য হলো। তারা হলেন_ ময়মনসিংহের মকবুল হোসেন (৬৫) ও শামসুদ্দিন (৭০), বরিশালের রেজাউল করিম (৬০) ও রইস উদ্দিন আকন্দ (৬৮), কক্সবাজারের নুরুল ইসলাম (৬৫) এবং রাজশাহীর সাহেব আলী মোল্লা (৮০)। আয়োজকরা জানিয়েছেন, তারা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তাদের লাশ নিজ নিজ বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।
দুই পা হারিয়েছেন জয়নাল : নেত্রকোনার জয়নাল আবেদিন (৭৫) ইজতেমায় অংশ নিতে ট্রেনে এসেছিলেন টঙ্গীতে। ট্রেন থেকে নামার পর তার পা পিছলে চলে যায় ট্রেনের নিচে। ট্রেন চলতে শুরু করলে পা দুটি কাটা যায়। তার সঙ্গে আসা মুসলি্লরা তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যান। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত নয়।
ভিভিআইপিদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা : আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে ভিভিআইপিদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ইজতেমা স্থলে দায়িত্ব পালনকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবুল বাসার মুহাম্মদ আমির উদ্দিন জানিয়েছেন, রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান মাঠের উত্তর-পশ্চিম কোণায় বিদেশি নিবাসের সামনে মোনাজাত মঞ্চের পাশে বসে আখেরি মোনাজাতে অংশ নেবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আখেরি মোনাজাতে অংশ নেবেন বাটা সু কারখানাসংলগ্ন এলাকায়। বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া মোনাজাত করবেন এটলাস মটর্স কারখানা ভবন এলাকায়। এছাড়া মন্ত্রী, সাংসদসহ সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের জন্যও আখেরি মোনাজাতে অংশ নেওয়ার বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ : পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে আখেরি মোনাজাতের দিন রোববার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত টঙ্গীর আবদুল্লাহপুর থেকে কুড়িল প্রগতি সরণি পর্যন্ত এবং বিপরীত দিকে গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স, বিমান যাত্রী ও ক্রু এবং দমকল বাহিনীর গাড়ি চলাচল করতে পারবে। আশুলিয়া থেকে রাজধানীমুখী যানগুলোকে বিমানবন্দর সড়কের পরিবর্তে মিরপুর-সাভার সড়ক এবং ময়মনসিংহ থেকে আসা যানবাহনকে চান্দনা চৌরাস্তা হয়ে চন্দ্রা ও নবীনগর সড়ক ব্যবহার করতে বলা হয়েছে।
নিরাপত্তা : দুর্ভোগের মধ্যে বড় স্বস্তির নাম নিরাপত্তা। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনীর প্রায় ১৫ হাজার সদস্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছেন। এর মধ্যে র‌্যাব সদস্য রয়েছেন কয়েক হাজার। অপরাধী শনাক্ত করতে রয়েছে ৫৬টি ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। র‌্যাবের ক্যাপ্টেন সাজিদুর রহমান জানান, এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তবে মুসলি্লরা জানান, বড় ধরনের কিছু না হলেও মোবাইল ফোন ও টাকা খোয়া যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটেছে। মোবাইল ফোন খুইয়েছেন ময়মনসিংহের তানভীর মাহমুদ। শখের জিনিস খোয়া গেছে তবু গা মাখছেন না। বললেন, ‘এটি হলো ইমানের পরীক্ষা। মোবাইল গেলেই কী, সোয়াব তো আর কেউ নিতে পারবে না। এই আশাতে আসছি। সব গেলেও থাকব।’ তানভীরের কথায় আরও স্পষ্ট হয়, পুণ্য অর্জনে বাধা নয় কোনোকিছুই।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...