দেবিদ্বারে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী স্বর্নার বাল্যবিবাহ বন্ধ

ফখরুল ইসলাম সাগর,দেবিদ্বার থেকেঃ
শারমিন জাহান স্বর্না বয়স ১৩, সময় এখন লেখাপড়া আর খেলাধুলার। সে কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী। পৌর এলাকার চাপানগর গ্রামের সফিকুজ্জামানের মেয়ে সে। চাচা আক্তারুজ্জামান মুহুরী পৌর সভার সহায়তা কমিটির সদস্য। স্বর্নার এ বছর নবম শ্রেনীতে পড়ার কথা। কিন্তু অষ্টম শ্রেনীর ফাইনাল পরীক্ষা দেওয়া হলো না তার। কারন স্কুলে আশা যাওয়ার পথে বখাটেদের উৎপাত আর প্রেমের প্রস্তাব। সংসার কি স্বর্না না বুঝার আগেই মানসম্মান বাঁচাতে অভিবাবকরা তরিগরি করে শুক্রবার (২২ জানুয়ারী)স্বর্নার বিয়ে ঠিক করেন। বর উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে প্রভাসী গোলাম মোস্তফা। ছেলে এবং মেয়ে উভয় পক্ষেরই যখন বিয়ের সকল প্রস্তুতি শেষ পর্যায়, ঠিক সেই মুহুর্তে স্থানীয় সামাজিক সংগঠন দৃষ্টান্ত’র আবেদনের প্রেক্ষিতে দেবিদ্বার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পৌর প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশীদ ভূইয়া তার কার্যালয়ে ডেকে আনেন বর ও কনের অভিবাবকদের, বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে অবহিত করেন এবং স্বর্নার বাল্যবিবাহ বন্ধের নির্দেশ প্রদান করেন। বাল্যবিবাহ বন্ধ হওয়ায় স্বর্না খুশি হলেও তার ভয় সে বখাটেদের নিয়ে। স্বর্না সাংবাদিকদের জানান, প্রশাসনের সহযোগিতা পেলে সে আবার লেখা পড়া শুরু করবে। পৌর সহায়তা কমিটির সদস্য ও স্বর্নার চাচা আক্তারুজ্জামান মুহুরী জানান, বাল্যবিবাহ বন্ধ হলেও ভয় এখন বখাটেদের নিয়ে, কারন তারা হুমকী দিয়েছে স্বর্নাকে ওঠিয়ে নিয়ে যাবার। এ ব্যাপারে সামাজিক সংগঠন দৃষ্টান্ত’র সভাপতি সাইফুদ্দিন রনী জানান, বখাটেদের কারনে স্বর্নার মত আর যেন কোন মেয়ের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে না যায়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মামুনুর রশীদ ভূইয়া জানান, স্বর্নার লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার জন্য তার অভিবাবকদের বলা হয়েছে। কিন্তু বখাটেদের কারনে আর যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে ওই বখাটেদের বিরোদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...