কুমিল্লা রেলস্টেশনে যাত্রীদের দুর্ভোগ

কুমিল্লা প্রতিনিধি :
অব্যবস্থাপনা, এবং কর্তৃপক্ষের রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে কুমিল্লা রেলস্টেশনের অবস্থা বেহাল। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। সংস্কারের অভাবে যে কোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে কুমিল্লা রেলস্টেশনে। রেল স্টেশনের ১ নম্বর প্লাটফরমের অবস্থা খুব নাজুক। এই প্লাটফরমের রেললাইনটিতে পাথর নেই বললেই চলে। ১ নং প্লাটফরমের স্লিপারগুলোর ওপর পাথরের পরিবর্তে বড় বড় ঘাস গজিয়ে উঠেছে। নোংরা মলমূত্র ও আবর্জনা থাকার কারণে স্টেশনের পুরো এলাকা দুর্গন্ধে ভরা।
স্টেশনের ৩ নম্বর প্লাটফরমের রেললাইনটির অবস্থা এত বেশি নাজুক যে, বড় ধরনের দুর্ঘটনা যে কোনো মুহূর্তে ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। ওই রেললাইনে রেল বিটগুলো একটি আরেকটির সঙ্গে সংযোগ লাগানো আছে মাত্র দুটি নাট দিয়ে এবং নাটগুলো এতটাই নড়বড়ে যে, এগুলোর প্যাঁচ যে কোনো সময় খুলে যেতে পারে। মরিচা পড়ে রেলবিটগুলো ট্রেন চলাচলের জন্য অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। তিন নম্বর রেললাইনটিতে স্লিপারগুলোকে সাপোর্ট দেয়ার মতো পর্যাপ্ত পাথর নেই। পশ্চিম পাশে অনেক রেলবিট খোলা আকাশের নিচে অযত্নে ও অবহেলায় পড়ে আছে এবং এগুলোর ওপর ভ্রাম্যমাণ মানুষ অস্থায়ীভাবে বাসস্থান গড়ে তুলেছে। রেলস্টেশনের পশ্চিম পাশে বড় বড় অনেক পাথর দীর্ঘদিন যাবত পড়ে থাকতে দেখা যায়। তাছাড়া স্টেশনের যাত্রীদের প্রথম শ্রেণীর বিশ্রামাগারের টয়লেটের অবস্থা এতটা খারাপ এবং নোংরা যে, এখানে যাত্রীরা প্রবেশ করে না। বিশ্রামাগারগুলো প্রায় সময় বন্ধ থাকে। কুমিল্লা রেলস্টেশনের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে যাত্রীদের নিরাপত্তার অভাব খুব বেশি। যাত্রীদের মালামাল ছিনতাই, চুরিসহ বিভিন্ন ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে এখানে। কুমিল্লা রেলস্টেশনে মোবাইল সেট চুরি হওয়ার ঘটনা ঘটে সবচেয়ে বেশি। স্টেশনে যাত্রীর মোবাইল ফোন সেট চুরি হওয়ার ঘটনা ঘটছে প্রতিদিন। মোবাইল ফোন চুরি করার জন্য একটি বিশাল সিন্ডিকেট কাজ করছে এখানে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...