বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা মানা হচ্ছে না কুমিল্লায় ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণ করছে না ব্যাংক

কুমিল্লা প্রতিনিধি :
কুমিল্লায় ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণ করছে না বাংলাদেশ ব্যাংকের তফসিলভূক্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকের শাখা ব্যাংক। ফলে ব্যাংকে টাকা লেনদেনসহ হাট-বাজারে এসব নোট নিয়ে গ্রাহকরা পদে পদে হয়রানীর শিকার হচ্ছে।
সূত্র মতে, ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব কারেন্সী ম্যানেজমেন্ট এণ্ড পেমেন্ট সিস্টেমস্ থেকে তফসিলভূক্ত সকল ব্যাংকগুলোর জ্ঞাতার্থে জারীকৃত পরিপত্রে বলা হয়, ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট জনসাধারণ থেকে গ্রহণে অনুসরণীয় কার্যপদ্ধতি নির্দেশিত থাকা সত্ত্বেও এসব নোট গ্রহণে ব্যাংক শাখাগুলোর বিরুদ্ধে অনীহার অভিযোগ প্রায়ই পাওয়া যাচ্ছে। এ অবস্থা অতীব অনভিপ্রেত। এ ধরণের অনীহা পরিহার করে ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট জনসাধারণ থেকে গ্রহণে সকল ব্যাংকগুলোর শাখাকে সক্রিয় হওয়ার লক্ষ্যে জারীকৃত পরিপত্রে কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের ওই নির্দেশনায় বলা আছে, জনসাধারণের উপস্থাপিত ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণ করা হয় মর্মে নোটিশ বোর্ড প্রত্যেক ব্যাংকের শাখায় জনসাধারণের সহজ দৃষ্টিগোচর অবস্থানে টানিয়ে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো জনসাধারণের উপস্থাপিত অল্প ছেড়া-ফাটা (দু’য়ের অধিক খণ্ডে বিচ্ছিন্ন না হওয়া এবং নোটের অন্তত তিন চতুর্থাংশ উপস্থাপিত থাকা) নোট এবং ময়লা নোট গ্রহণ করবে এবং নোটের বিনিময় মূল্য জমাকালেই দিয়ে দেবে। নির্দেশনায় বলা হয়, অধিক ছেড়া-ফাটা, অত্যধিক জীর্ণ, আগুনে পোড়া বা ঝলসানো এবং তিন চতুর্থাংশের কম রয়েছে এমন নোটের বিনিময় মূল্য বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রাপ্তি সাপেক্ষে শাখা ব্যাংকগুলো জনসাধারণ থেকে গ্রহণ করবে এবং বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রেরণের ডাকমাশুল নোট জমাদানকারী থেকে আদায় হবে। এ ধরণের নির্দেশনা উল্লেখপূর্বক সর্বনিু ৪৮ সেঃ মিঃ ও ৪৫ সেঃ মিঃ সাইজের নোটিশ বোর্ড ব্যাংকের দর্শনীয় স্থানে পরিপত্র প্রাপ্তির দু’ সপ্তাহের মধ্যে টানানোর বিধান রয়েছে। ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণে কোন ব্যাংক শাখার বিরুদ্ধে অনীহার অভিযোগে ওই ব্যাংকের নতুন শাখার জন্যে লাইসেন্স, নতুন অনুমোদিত ডিলারশীপ লাইসেন্স, ব্যবসায় সম্প্রসারণমুখি অন্যবিধ অনুমতির আবেদনে সিদ্ধান্ত গ্রহণকালে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রতিকুল বিবেচনায় নেবে। এছাড়াও ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণে অনীহা অপরিবর্তীত থাকলে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের বিরুদ্ধে ও সংশ্লিষ্ট নির্বাহীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ দণ্ড আরোপও বাংলাদেশ ব্যাংক বিবেচনা করবে বলে পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।
সূত্র মতে, ছেড়া-ফাটা, ময়লা, পোড়া ও ঝলসানো নোট গ্রহণে বাংলাদেশ ব্যাংকের এতোসব নির্দেশনাসহ আইনানুগ দণ্ডের কথা বলা হলেও কুমিল্লার কোন কোন তফসিলভূক্ত ব্যাংক তা’ আমলে নিচ্ছে না। অনুসন্ধানকালে প্রায় ব্যাংকেই এ ধরণের নিয়মনীতি সম্বলিত নোটিশ বোর্ড দেখা যায়নি। অপরদিকে, কয়েকটি ব্যাংক শাখায় নোটিশ বোর্ড থাকলেও তা’ দর্শনীয় স্থানে নেই। অনুসন্ধানকালে ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণে অনীহা দেখায় প্রাইম ব্যাংক’র কুমিল্লাস্থ ছাতিপট্টি শাখা। গত ৬ জানুয়ারি বুধবার ওই শাখার ক্যাশ কাউন্টারে ক্যাশ ইনচার্জ সায়েম সোলায়মান ও ক্যাশিয়ার তাহের কর্তৃক ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণে অনীহার বিরুদ্ধে গ্রাহকরা প্রতিবাদ করে। বিষয়টি নিয়ে কয়েকজন গ্রাহক ওই ব্যাংকের ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করেও প্রতিকার পায়নি বলে জানা গেছে। ছেড়া-ফাটা, ময়লা ও ঝলসানো নোট গ্রহণ সম্পর্কে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা সম্বলিত নোটিশ বোর্ডও ওইদিন শাখাটিতে দেখা যায়নি।
এ বিষয়ে প্রাইম ব্যাংকের ম্যানেজার ওমর ফারুক জানান, যেহেতু কুমিল্লায় বাংলাদেশ ব্যাংকের কোন শাখা নেই এবং কুমিল্লায় সোনালী ব্যাংক আমাদের দেয়া ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট নিতে ঝামেলা করে, সেহেতু আমরা ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট সহজে গ্রহণ করি না। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা সম্বলিত নোটিশ বোর্ড ব্যাংকে টানানো হয়নি কেন, এমন প্রশ্নের উত্তর মেলেনি ম্যানেজারের কাছ থেকে। এদিকে, সোনালী ব্যাংক কুমিল্লা কর্পোরেট শাখার উর্ধ্বতন নির্বাহী কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার দেবনাথ জানান, সোনালী ব্যাংক ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণে কখনোই অনীহা প্রকাশ করে না। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা মেনে সোনালী ব্যাংকের সকল শাখায় ছেড়া-ফাটা ও ময়লা নোট গ্রহণ করা হয়। এ কাজে দায়িত্ব এড়ানোর জন্যে সোনালী ব্যাংকের বিরুদ্ধে কেউ অভিযোগ করলে তা’ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...