মুরাদনগরে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতিত গৃহবধু মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে

মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :
বাবার বাড়ী থেকে যৌতুকের ১লাখ টাকা এনে দিতে না পারায় সেলিনা আক্তার (২২) নামের ১সন্তানের জননী অমানবিক অত্যাচার-নির্যাতনের শিকার হয়ে বর্তমানে কুমিল্লার মুরাদনগর হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। সে একই উপজেলার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউনিয়নের ব্রাম্মন চাপিতলা গ্রামের মৃত ফরিদ উদ্দিন মাষ্টারের ছেলে বখাটে সাজারুলের স্ত্রী বলে জানা গেছে। স্বামী ও তাঁর পরিবারের নির্যাতনে সজ্ঞাহীন সেলিনা বেগম নিখোঁজ একমাত্র ছেলের শোকে এখন পাগল প্রায়। বিষয়টির ব্যাপারে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার গোলাম মোস্তফা খানের কাছে সনদ আনতে গেলে তিনি ১১ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে না পারায় প্রকৃত ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে জালিয়াতি সনদ দেন বলে অভিযোগ উঠেছে। অবশ্য, ডাক্তার গোলাম মোস্তফা খান টাকা চাওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন। এ ব্যাপারে সেলিনা আক্তারের ভাই শ্রীকাইল ইউনিয়নের চুলুরিয়া গ্রামের মৃত অবসরপ্রাপ্ত হাবিলদার এলাহী বক্রের ছেলে মাসুদ রানা সোহেল বাদী হয়ে গত ৯ জানুয়ারী শনিবার ব্রাম্মন চাপিতলা গ্রামের মৃত ফরিদ উদ্দিন মাষ্টারের ছেলে যৌতুক লোভী সাজারুল (২৭), শাশুরী রুসিয়া বেগম (৫৫), ননদ লিপি আক্তার (৩২), রিনা বেগম (৩৫) ও দেবর আজহারুলের (৩০) বিরুদ্ধে থানায় দায়েরকৃত লিখিত অভিযোগটির তদন্ত চলছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানার জন্য অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...