আইডিয়া কাপ শ্রীলঙ্কার

india srilanka 1
ক্রীড়া প্রতিবেদক :
বুধবার শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ভারতকে ৪ উইকেটে হারিয়ে ত্রিদেশীয় আইডিয়া কাপ জিতে নিয়েছে শ্রীলঙ্কা, প্রথমে ব্যাট করে শুরুতেই খাদে পড়ে যায় ভারত। শেষ পর্যন্ত সুরেশ রাইনা সেঞ্চুরি (১০৬) করে দলকে খাদ থেকে টেনে তুললেও লড়াই করার মতো পুঁজি সংগ্রহ করতে পারেননি। ৪৮.২ ওভার খেলে তারা করে ২৪৫ রান
জয়ের লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে শুরুতেই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান উপুল থারাঙ্গার উইকেট হারালেও রানের চাকা থেমে ছিল না শ্রীলঙ্কার, বরং রানের বন্যা বইয়ে দেন অপর উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তিলকরত্নে দিলশান ও অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা। মাত্র ১৬.১ ওভারে ৯৩ রান তোলার পর ব্যক্তিগত ৪৯ রানে যুবরাজ সিংয়ের বলে উইকেটের পেছনে ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে ধরা পড়েন দিলশান। চার মারেন আটটি।মাহেলা জয়াবর্ধনের অপরাজিত হাফ-সেঞ্চুরির (৭১*) কাছে শেষ পর্যন্ত ম্লান হয়ে গেল সুরেশ রাইনার সেঞ্চুরি। তারা । ২৪৬ রানের জয়ের লক্ষ্য টপকে ২৪৯-এ পৌঁছে তারা ৬ উইকেট হারিয়ে, ৯ বল বাকি থাকতে।
ভারতীয় বোলারদের মধ্যে ৪১ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন হরভজন সিং। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন নেহরা, যুবরাজ সিং ও রবীন্দ্র জাদেজা।
এর আগে টস জিতে সাঙ্কাকারা ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান। কিন্তু নুয়ান কুলাসেকারা ও চানাকা ওলেগেদারার মারাত্মক বোলিংয়ের মুখে কোনো সুবিধা করতে পারেনি ভারতের প্রথমদিকের ব্যাটসম্যানরা। ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে হিসেবের খাতা খোলার আগেই কুলাসেকারার বলে সরাসরি বোল্ড হন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান গৌতম গম্ভীর। স্কোর বোর্ডে তখন দেখা যাচ্ছিল মাত্র ১ রান। এরপর এক প্রান্তে উইকেট পড়তে থাকলেও অপর প্রান্তে চলতে থাকে বীরেন্দর শেবাগ নামের ঝড়। দলের রানের সঙ্গে ৩ যোগ হতেই ফিরে যান বিরাট কোহলি ২ রান করে। ওলেগেদারার বলে উইকেটের পেছনে সাঙ্গাকারার হাতে ধরা পড়েন তিনি।
দলীয় ১৬ রানের মাথায় আবারো আঘাত হানেন ওলেগেদারা। যুবরাজ সিংও তার হিসেবের খাতা খোলার আগেই থিলান সামারাবীরারার হাতে ধরা পড়েন। ৪৭ রানের মাথায় মহেন্দ্র সিং ধোনি ফিরে গেলে বিপদে পড়ে ভারত। কুলাসেকারার বলে সাঙ্গাকারার হাতে ধরা পড়ার আগে ১৯ বলে ১৪ রান করেন তিনি। দলের রানের সঙ্গে আর ১৩ রান যোগ হওয়ার পর শেবাগ নামের ঝড়টি থামিয়ে দেয়ার পর একেবারে খাদে পড়ে যায় ভারত। মাত্র ২৭ বলে ৪২ রান করে কুলাসেকারা বলে সাঙ্গাকারার হাতে ধরা পড়েন তিনি। চার মারেন সাতটি।
দলীয় ৬০ রানের মাথায় পাঁচটি উইকেট হারিয়ে খাদে পড়ে যাওয়ায় মনে হচ্ছিল সম্মানজনক একটি স্কোরও গড়ে তুলতে পারবে না ভারত। কিন্তু সুরেশ রাইনার মনে ছিল অন্য ভাবনা, খাদ থেকে দলকে টেনে তোলা। রবীন্দ্র জাদেজার সঙ্গে জুটি বেঁধে তোলেন ১০৬। জাদেজা ১৬৬ রানের মাথায় তিলতরত্নে দিলশানের বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েন। ৩৪ বল খেলে ৩৮ রান করলেও সীমানার ওপারে বল পাঠাতে পারেননি একবারও।
এরপর রাইনার সঙ্গে জুটি বাঁধেন হরভজন সিং। দু’জনে মিলে ৫৩ রান যোগ করলে দলের রান দু’শ’র কোঠা পেরিয়ে যায়। হরভজনের ফিরে যাওয়ার পর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়তে থাকে। শেষ উইকেটে আশিষ নেহরা ও শ্রীশান্ত ৮ রান যোগ করার পর পেরেরার বলে শ্রীশান্ত (৪) সরাসরি বোল্ড হলে ২৪৫ রানের সম্মানজনক স্কোরেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় ভারতকে।
শ্রীলঙ্কার বোলাদের মধ্যে কুলাসেকারা ৪টি ও ওলেগেদারা ৩টি উইকেট নেন। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন রনদ্বিপ, পেরেরা ও দিলশান।
ম্যাচ সেরার পুরস্কার পান কুলাসেকারা।
সাঙ্গাকারা জিতে নেন সিরিজ সেরার পুরস্কার।
india srilanka 2

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...