নাফীস আফতাবদের খেলা হলনা এই সিরিজেও

cricket
ক্রীড়া প্রতিবেদক :
ব্যাটসম্যানরা তো ভালোই করছে এ সিরিজে। কাকে বাদ দিয়ে নাফীস কিংবা আফতাবকে নামাব বলুন? টিম ম্যানেজমেন্টের এক কর্তা কিছুটা অসহায় ছিলেন এ উত্তরটি দিতে গিয়ে। প্রতিবার উইনিং কম্বিনেশন না ভাঙার পক্ষেই কথা বলেন ওই কর্মকর্তা। সিরিজ শুরুর মুখে জোর আলোচনায় ছিলেন আইসিএল ফেরত ক্রিকেটাররা। ভারতের ওই নিষিদ্ধ টুর্নামেন্ট থেকে মুক্তি নিয়ে জাতীয় দলে ফিরতে পারবেন কি আফতাব, শাহরিয়ার নাফীস, অলক কাপালিরা? জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডেকে সেই আশঙ্কা দূর করেছিলেন নির্বাচকরা। চূড়ান্ত স্কোয়াডে আফতাব আহমেদ আর শাহরিয়ার নাফীসকে দেখেও সমর্থকরা খুশি হয়েছিলেন। তিন জাতি সিরিজে অন্তত একটি ম্যাচ খেলার ইচ্ছা ছিল আফতাব, নাফীস দু’জনেরই।
অন্তত সামনের সিরিজের কথা ভেবেও কি আফতাবকে খেলানো যেত না? মিরপুরে বাংলাদেশ দলের প্র্যাকটিস সেশনে এ প্রশ্নগুলো ঘুরপাক খাচ্ছিল। যার উত্তর ছিল আফতাবের কাছেও। দিব্যি প্র্যাকটিস করে যাচ্ছিলেন তিনি। এই সিরিজে না হোক পরবর্তী সিরিজে খেলার আশা রাখছেন তিনি। আফতাব মেনে নেননি, তিনি আইসিএল থেকে ফিরেছেন বলেই তাকে ম্যাচ খেলতে নেওয়া হয়নি। ‘আইসিএল এখন অতীত। এ নিয়ে আর কোনো কথা বলতে চাই না।’ আফতাবের মতো কোচ জেমি সিডন্সও আইসিএল ফেরত ব্যাপারটিতে ঘোর আপত্তি জানিয়েছেন। ‘আমার হাতে যারা রয়েছেন তারা সবাই বাংলাদেশি ক্রিকেটার। এখানে আইসিএল ফেরত বলতে কিছু নেই।’ সিডন্সও বুঝিয়ে দিতে চাইলেন ব্যাটিং লাইনআপের কোথাও স্লট ফাঁকা নেই। এ সিরিজে কেউ খারাপ করলেই কেবল সুযোগ ছিল আফতাব কিংবা নাফীসের সামনে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...