সরকারের কাছে কিছুই চাওয়ার নেই : এরশাদ

ershad
লাকসাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে দুটি ধারা প্রচলিত রয়েছে। একটি বাঙালি জাতীয়তাবাদ, আরেকটি বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ। জাতীয় পার্টি বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের প্রতিনিধিত্ব করে, যা গত নির্বাচনে প্রমাণ হয়েছে। মহাজোট সরকারের কাছে আমার কিছু চাওয়ার নেই। একজন মুসলমান হিসেবে আমি আল্লাহর কাছে চাই। আল্লাহ আমাকে অনেক সম্মান ও ইজ্জত দিয়েছেন। আমি ৯ বছর এদেশের সফল রাষ্ট্রপতি ছিলাম। সুতরাং যদি কিছু চাইতে হয় আল্লাহর কাছে চাইব।জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এমপি বলেন, বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় লেখা হয় আমি নাকি মহাজোট সরকারের ওপর নাখোশ। তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, দয়া করে আমার সম্পর্কে এসব শব্দ লিখবেন না। এরশাদ বলেন, আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে ৮০ থেকে ১০০ আসনে জয়ী করতে হবে। তাহলে সরকার গঠনে জাতীয় পার্টি নিয়ামক ভূমিকা রাখবে।
এরশাদ তার শাসনামলে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকার কথা উল্লেখ করে টেন্ডারবাজ, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়তে জাতীয় পার্টির পতাকাতলে সমবেত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আমিই উপজেলা প্রশাসন প্রবর্তন করেছিলাম। ২০ বছর আগে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দু’জনেই উপজেলা ব্যবস্থার বিরোধিতা করে হরতালসহ বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রাম করেছিলেন। আজ ২০ বছর পর তারা দু’জনেই অনুধাবন করতে পেরেছেন, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের উন্নয়ন সাধন করতে হলে উপজেলা পদ্ধতির বিকল্প নেই।
এরশাদ গতকাল নোয়াখালী জিলা স্কুল মাঠে জেলা জাতীয় পার্টির উদ্যোগে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা ও জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সালাহ্উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ও সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যক্ষ আনম শাহজাহান, দিদারুল আলম দিদার, এআর মোঃ সেলিম, জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি আলী আকবর, সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন আজাদ এবং জেলা ও উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতৃবৃন্দ.
এর আগে দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে তিনি কুমিল্লার লাকসামে এক পথসভায় বক্তব্য রাখেন। নোয়াখালী যাওয়ার পথে লাকসাম বাইপাসের পথসভায় তিনি বলেন, লাকসামে আমার পথসভার কর্মসূচি ছিল। আপনাদের ভালোবাসা দেখে আমি অভিভূত, এ তো দেখছি জনসভা। তিনি বলেন, আমার ৯ বছরের শাসনামলের সঙ্গে বাকি ১৮ বছরের শাসনামল তুলনা করুন, বাংলাদেশের উন্নতি-অবনতির স্থিরচিত্র আপনাদের চোখের সামনে ভেসে উঠবে। পথসভায় ১৫ মিনিটের বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, অনেক কথা বলার আছে, ৬ জানুয়ারি ঢাকার মহাসমাবেশে আসুন। সব কথা বলব। অনেক অজানা কথা জানতে পারবেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...