মুরাদনগরে দলীয় লোকজনের হাতে আওয়ামীলীগ নেতা আহত : বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর

মোঃ হাবিবুর রহমান, মুরাদনগর থেকেঃ
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক স্বপন কুমার সাহার উপর দলীয় লোকজনেরা হামলা চালিয়ে নগদ টাকা, মোবাইল ফোন ও হাত ঘড়ি ছিনিয়ে নেয়াসহ, ঘটনা ধামাচাপা দিতে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকায় এলাকাবাসী উদ্বেগ ও উৎকন্ঠার মধ্য দিয়ে দিনাতিপাত রছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
জানা যায়, স্বপন কুমার সাহা রোববার রাত অনুমান ১০টায় রহিমপুর অযাচক আশ্রমে উপাসনা শেষে বাড়ী ফেরার পথে আওয়ামীলীগের আরেক প্রভাবশালী নেতা মিলন সরকারের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায়। এসময় তাঁর কাছ থেকে নগদ ৮শ’ টাকা, একটি মোবাইল ফোন ও হাত ঘড়ি ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে দলীয় লোকজনেরা উত্তেজিত হয়ে উঠে। উক্ত ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য সোমবার সকাল অনুমান ৯টায় ওই ঘটনায় জড়িতরা নবীপুর মার্কেটের আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে ঢুকে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করে। এ সময় তারা কার্যালয়ের চেয়ার, টেবিল, দরজা এবং জানালা তছনছ করে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে হামলার শিকার স্বপন কুমার সাহা জানান, সন্ত্রাসী মিলন দীর্ঘদিন যাবত এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েমসহ দলীয় নেতা কর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। উক্ত কার্যকলাপে বাঁধা দিতে গিয়ে তিনি সন্ত্রাসীদের রোষানলে পড়েন। তার ধারনা, সন্ত্রাসীরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে তাকে হত্যা পূর্বক লাশ ঘুম করার চেষ্টা করছিল, সৌভাগ্যক্রমে তিনি বেঁচে যান। এ ব্যাপারে ১০/১২ জনের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
এ দিকে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার, উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হারুন আল রশীদ, আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবুল কালাম আজাদ উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।
এ ঘটনায় অভিযুক্ত আওয়ামীলীগ নেতা মিলন সরকার জানান, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। এ ঘটনার ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না। তবে তাকে সায়েস্তা করার জন্য পরিকল্পিত ভাবে একটি মহল দীর্ঘদিন যাবত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে তিনি দাবী করেন।
মুরাদনর থানার ওসি আমিরুল আলম জানান, ঘটনাটি তিনি শুনে পরিস্থিতি শান্ত রাখার জন্য পুলিশ পাঠিয়েছেন। তবে এ পর্যন্ত থানায় কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...