সবার সহযোগিতা চাইলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ভিসি প্রফেসর ড. আমির হোসেন খান

ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ভিসিকে বরণ
ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ভিসিকে বরণ
এম আহসান হাবীব (কুবি প্রতিনিধি ) : কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) নতুন ভিসি হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত প্রফেসর ড. আমির হোসেন খান গতকাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে তার দায়িত্বে যোগদান করেছেন। নবনিযুক্ত ভিসির যোগদানে ক্যাম্পাসজুড়ে প্রানচাঞ্চল্য পরিলক্ষিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ভিসির আগমনে উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে উচ্ছ্বলতার জোয়ার দেখা গেছে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় নামক মহাতরীর নবাগত কান্ডারীকে বরণ করে নেয়ার আয়োজন ছিল চোখে পড়ার মতো। সবেমাত্র দায়িত্বের বোঝা কাঁধে তুলে নেয়া ভিসিকে তার যাবতীয় দায়িত্ব যথাযথভাবে বুঝিয়ে দিতে শিক্ষক, কর্মকর্তা আর কর্মচারীদের ব্যস্ত তৎপরতা ছিল আশাব্যঞ্জক। এতকিছুর মধ্যে সবার চোখেই আশার ঝিলিক- এবার হয় তো মেঘ কাটবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের পুঞ্জিভূত সব সংকটের অবসান হবে। যোগদান উপলক্ষে শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, কর্মকর্তা, কর্মচারী, সাংবাদিক, সুধীজন, ছাত্রলীগের স্থানীয় গ্রুপ ও ছাত্রশিবির নতুন উপাচার্যকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাবিত কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পনের মধ্য দিয়ে নতুন ভিসি ক্যাম্পাসে তার কার্যক্রম শুরু করেন। পুষ্পস্তবক অর্পন শেষে ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতা যুদ্ধসহ দেশের সকল শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন এবং শহীদদের উদ্দেশ্যে দোয়া ও মুনাজাত করেন। ভিসি উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান সমস্যা সমাধানে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন এবং কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। পরে ভিসির কার্যালয়ে উপস্থিত ছাত্র, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের নিয়ে এক সংক্ষিপ্ত সৌজন্য সভার আয়োজন করা হয়। এ সময় সকলের উদ্দেশ্যে বক্তব্যে ভিসি ড. আমির হোসেন বলেন, একটি ষড়যন্ত্রের কারণে ৪০ বছর পরে কুমিল্লায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, বিভিন্ন কারণে অত্যন্ত সম্ভাবনাময় বিশ্ববিদ্যালয়টির পদযাত্রা বারবার ব্যাহত হয়েছে। সারাদেশে এর সুনাম ক্ষুন্ন হয়েছে এবং অস্থিতিশীল হিসেবে পরিচিতি ঘটেছে। তবে সবাই মিলে কাজ করলে অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি সম্মানজনক অবস্থানে দাঁড় করানো সম্ভব। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার ড. গোপাল চন্দ্র সেন, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কামাল উদ্দিন ভূইয়া, কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান কাজী জাহিদুর রহমান। সকলেই তাদের বক্তৃতায় নতুন ভিসিকে বিশ্ববিদ্যালয় সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় সব ধরনের সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন। এরপর থেকে রাত পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পক্ষের কয়েকটি মিটিংয়ে ব্যস্ত সময় কাটান ভিসি।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...