বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন খুনী রশিদের গ্রামের বাড়ি চান্দিনার লোকজন।।দ্রুত রায় কার্যকর করার দাবী

bb
মুন্সী কামাল আতাতুর্ক মিসেল : সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যামামলা রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন খুনী রশিদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার চান্দিনার সর্বস্তরের জনগণ। গ্রামের লোকজন বলছেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় খুব শ্রীঘই কার্যকর করে কুমিল্লা বাসীকে কলংঙ্ক মুক্ত করার জন্য তারা বর্তমান সরকারের কাছে জোর অনুরোধ জানিয়েছেন।
বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টায় খুনী রশিদের গ্রামের বাড়ি চান্দিনার ছয়ঘরিয়া এলাকায় সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পুরো এলাকা জুড়ে বয়ে যাচ্ছে আনন্দ আর মিষ্টি বিতরণ । যারা সাংবাদিক ও প্রশাসনের লোকজনকে দেখে ভয়ে পালিয়ে যেত। তারা এখন সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে এগিয়ে আসত শুরু করেছেন। ওই গ্রামের আলী মিয়া তিনি বঙ্গবন্ধুর হত্যা মামলার রায়কে স্বাগত জানিয়ে বলেন, রায়ের আদেশ দ্রুত কার্যকর করে আমাদেরকে তথা পুরো কুমিল্লাবাসীকে কলংঙ্ক মুক্ত করার জন্য তিনি বর্তমান সরকারের কাছে অনুরোধ জানান। চান্দিনা মহিলা কলেজের স্নাতক বর্ষের ছাত্রী ওই গ্রামের মনসুরা আক্তার বলে, বহু দিন প্রতীক্ষার পর গতকাল সুপ্রিম কোর্টে যে রায় ঘোষণা করা হয়েছে । সেই রায়ে আমি এবং আমার পুরো পরিবার আনন্দিত। এই রায় কার্যকরের মাধ্যমে আমরা নতুন প্রজন্মরা এ কলংক থেকে মুক্তি পেতে চাই।
উল্লোখ্য যে, কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার কেরনখাল ইউনিয়নের ছোট্র একটি গ্রাম ছয়ঘড়িয়া । এ গ্রামে ৩ হাজার লোকের বসবাস। এ গ্রামে বঙ্গবন্ধুর খুনি পলাতক আসামি ফ্রিডম পার্টির প্রতিষ্ঠাতা কর্নেল রশিদের বাড়ি । বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ওই গ্রামের বাসিন্দারা রশিদের পরিবারের কারণে নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন। বিভিন্ন সংস্থার লোকজনের আসা যাওয়ায় কারণে ওই গ্রামের সারারণ মানুষগণ সবসময় থাকতে হচ্ছে আতংকে । কিন্তু ওই গ্রামবাসির জিজ্ঞাসা ছিল আমরাতো কোনো অন্যায় করিনি। ওই পাপীর কারণে তারা প্রত্যেকেই হতবিম্বত হয়ে পড়েছিল। তবে গতকাল সুপ্রিম কোর্টেও রায় ঘোষণার পর ছয়ঘড়িয়া গ্রামের লোকজন স্বস্তি প্রকাশ করছেন। তারা আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জানান।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...