বাংলার মানুষ বঙ্গবন্ধু হত্যার রায় কার্যকর দেখতে চায়। -জাহাঙ্গীর সরকার

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকারের হাতে সোনার নৌকা উপহার দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন বিএনপি নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা। ছবি- ইমরুল
কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকারের হাতে সোনার নৌকা উপহার দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন বিএনপি নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা। ছবি- ইমরুল
মুরাদনগর প্রতিনিধি : কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেছেন, ২০০৮ সালের রায়ের মধ্য দিয়ে বাংলার মানুষ বুঝিয়ে দিয়েছে তারা স্বাধীনতা বিরোধীচক্রের বিচার চায়। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের রায় কার্যকর দেখতে চায় এবং শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুখী-সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়তে চায়। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ৭৫-এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে জিয়াউর রহমান স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত ও মুসলিমলীগকে এ দেশে রাজনীতি করার অধিকার দেন এবং সেসব হত্যাকারীকে বিদেশের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকুরি দিয়ে পুণর্বাসন পুরস্কৃত করেন। আর খালেদা জিয়া ১৫ আগস্ট যেটি তার আসল জন্মদিন নয়, সেদিন কেক কেটে জন্মদিন পালন করেন।
তিনি শনিবার সন্ধ্যায় কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের পাঁচকিত্তা নতুন বাজারে বিএনপি নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা এবং অস্থায়ী চেয়ারম্যান আক্কাস মিয়ার নেতৃত্বে শতাধিক বিএনপি নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের বাংলাদেশ আওয়ামীলীগে যোগদান উপলক্ষে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। এর পূর্বে বিএনপি থেকে আওয়ামীলীগে যোগদানকারী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা গুরত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন।
এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হরুন আল রশীদ, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা হানিফ সরকার, যুগ্মসম্পাদক এম রুহুল আমিন, উপজেলা সাধারন সম্পাদক এডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, বিশিষ্ট শিল্পপতি গোলাম কিবরিয়া, অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্যবসায়ী আবুল হাসেম হাসু, উপজেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক শামসুল হক ফিরোজ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক সৈয়দ আহাম্মদ হোসেন আউয়াল, জেলা যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন, শরীফুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ ও ভিপি জাকির হোসেন। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কাশেম সরকারের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক মন্টু পোদ্দার, আওয়ামীলীগ নেতা আবদুর রহিম মোল্লা, আবদুল হক, প্রভাষক সুনীল চন্দ্র রায়, জয়নাল আবেদীন, কফিল উদ্দিন মাস্টার ও যুবলীগ নেতা আবুল হাসেম প্রমুখ।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হারুন আল রশীদ বলেন, বিগত ৭ বছরে বঙ্গবন্ধু হত্যার রায় কার্যকর হয়নি। এ হত্যার রায় যাতে কার্যকর না হয় সে জন্য ষড়যন্ত্র চলছে। বঙ্গবন্ধু হত্যার রায় কার্যকর না হলে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত ও গণতন্ত্র অর্থবহ হবে না।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...