BIGtheme.net http://bigtheme.net/ecommerce/opencart OpenCart Templates
Home / প্রচ্ছদ / ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা / নবীনগর / নবীনগর কালী পূজা মন্ডবে সন্ত্রাসী হামলায় কালী মূর্তী ভাংচুর আহত-১
25.10.14

নবীনগর কালী পূজা মন্ডবে সন্ত্রাসী হামলায় কালী মূর্তী ভাংচুর আহত-১

সাধন সাহা জয়: নবীনগর :–

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার লাউর ফতেপুর গ্রামে বনিক পাড়ায় গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে কালীপূজা চলাকালে পূজামন্ডবে সন্ত্রাসীদের হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলাকারীরা কালীমূর্তি ভাংচুর করে এবং পূজার প্রসাধ লুটিয়ে ফেলে।
সন্ত্রাসীরা শুক্রবার দুপুরে ওই পুজার বাড়ির কর্তা কাজল বনিক(৪৫) নামের এক ব্যাক্তিকে গ্রামের বাজারে পিটিয়ে আহত করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়েছে।

সরজমিনে গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লোকজনের সংগে কথা বলে জানা গেছে , লাউর ফতেপুর গ্রামের স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রদীপ বনিকের বাড়িতে কালীপূজা চলাকালে বৃহস্পতিবার রাত প্রায় সাড়ে ১২ টার দিকে ওই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে।

বাড়ির গৃহকর্তা প্রদীপ বনিক অভিযোগ করে বলেন , রাত প্রায় সাড়ে ১২ টার দিকে গ্রামের অধিবাসী স্থানীয় পূজা উদযাপন পরিষদের নেতা দয়ানন্দ দাসের ছেলে সুমন দাস(৩২) ও নিতাই সরকারের ছেলে কালীদাস সরকার(৪০) মদ খাওয়ার জন্য দশ হাজার টাকা চাঁদা চেয়ে ওই বাড়িতে গিয়ে হৈচৈ ও চেচামেচি শুরু করে।

এ সময় ওদের দু’জনের সংঙ্গে ওই গ্রামেরই রুপ মিয়ার ছেলে জিতু মিয়া (২৬) যোগ দেয়। এক পর্যায়ে দাবিকৃত মদের টাকা না পেয়ে ওই তিনজন পূজা মন্ডবে হামলা চালিয়ে পূজার সরঞ্জামী তছনছসহ কালীমূর্তি ও প্রসাধের থালা ভাংচুর করে চলে যায়।

আহত কাজল বনিক অভিযোগ করে বলেন , এ ঘটনার পরদিন শুক্রবার দুপুরে আমি একা স্থানীয় বাজারে গেলে আগের রাতের হামলাকারী সন্ত্রাসী জিতু মিয়ার নেতৃত্বে ৬/৭ জন লোক আমার উপর সশস্ত্র হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় এ সময় হামলাকারীরা লাঠিশোঠা দিয়ে তাকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে ভর্তি করে।

এই খবর পেয়ে নবীনগর উপজেলার অফিসার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবু শাহেদ চৌধুরী, থানার ওসি রুপক কুমার সাহা , ওসি(তদন্ত) পেয়ার আহমেদ সহ পুলিশদল নিয়ে শুক্রবার বিকেলে(প্রায় সন্ধ্যায়) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ওসি রুপক কুমার সাহা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হামলাকারীরা পালিয়ে গেছে। তবে ঘটনাস্থলে গিয়ে হামলাকারীদের অভিভাবকদের থানায় হামলাকারীদের যে কোন মূল্যে হাজির করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় পুলিশ এ বিষয়ে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেবে। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।

উপজেলা অফিসার নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) আবু শাহেদ চৌধুরী ঘটনাস্থল থেকে বলেন ঘটনাটি দু:খজনক। তবে এটি কোন সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা নয়। এবিষয়ে পুলিশকে দোষীদের দ্রুত কঠোর ব্যবস্থা নিতে দির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Check Also

Muradnagar=23-03-19=

করিমপুর মাদরাসায় বোখারী শরীফের খতম ও দোয়া

মো. হাবিবুর রহমান :– কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার করিমপুর জামিয়া দারুল উলূম মুহিউস্ সুন্নাহ মাদরাসায় ১৪৪০ ...

Leave a Reply