BIGtheme.net http://bigtheme.net/ecommerce/opencart OpenCart Templates
Home / প্রচ্ছদ / কুমিল্লা জেলা / কুমিল্লার চান্দিনায় শিক্ষকের পুণর্বহালের দাবীতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ ভাংচুর
Chandina news Pic 3

কুমিল্লার চান্দিনায় শিক্ষকের পুণর্বহালের দাবীতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ ভাংচুর

মাসুমুর রহমান মাসুদ,চান্দিনা (কুমিল্লা):–
কুমিল্লার চান্দিনায় এক শিক্ষকের পূণর্বহাল দাবীতে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থী ও স্থানীয় এলাকাবাসী।
সোমবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত উপজেলার বরকইট উদয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ে ওই ঘটনা ঘটে। এসময় বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ, বিদ্যালয়ের দরজা, জানালাসহ প্রয়োজনীয় আবসাবপত্র ও শিক্ষা সামগ্রী ভাংচুর করে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করে পুলিশ।
বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা জানায়, বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক আনোয়ার হোসেন এর কাছ থেকে জোর পূর্বক অব্যাহতি পত্রে সাক্ষর নেয়। আমাদের শিক্ষক আনোয়ারা হোসেনকে পূণর্বহাল করতে আমাদের এ আন্দোলন।

Chandina news Pic 6
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন চন্দ্র দেবনাথ জানান, শিক্ষক আনোয়ার হোসেন নিজের ব্যক্তিগত সমস্যা জানিয়ে ২০১৩ সালের ১৩ জানুয়ারী তারিখে প্রথম, চলতি বছরের ২৭ এপ্রিল দ্বিতীয় বার পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। কিন্তু বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে অনুরোধ জানিয়ে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে তাঁর পদত্যাগ গ্রহণ করেনি। তার তিন দিন পর ৩০ এপ্রিল আনোয়ার হোসেন একই সমস্যা জানিয়ে তৃতীয় ও শেষ বারেরমত পদত্যাগ পত্র জমা দিলে গত ১৫ মে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভায় বিষয়টি উত্থাপিত হয়ে তার পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করে তাকে বিদ্যালয় থেকে অব্যাহত দেয়।
বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাসার প্রধান শিক্ষকের কথার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মূলত বিদ্যালয়ের স্থানীয় কিছু কুচক্রি মহল বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মিথ্যা পরোচনা দিয়ে এ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। আমরা তাৎক্ষনিক ভাবে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে অবহিত করে থানায় সংবাদ দেই। পরে শিক্ষা কর্মকর্তা ও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
শিক্ষক আনোয়ার হোসেন জানান, আমি স্বইচ্ছায় পদত্যাগ করিনি। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ আমার কাছ থেকে জোর পূর্বক পদত্যাগ পত্র নেন।
এব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কানিজ আফরোজ জানান, ‘শিক্ষক আনোয়ার হোসেন স্ব-ইচ্ছায় ব্যক্তিগত সমস্যা দেখিয়ে পদত্যাগ করেছেন। যদি ওই শিক্ষক শিক্ষার্থীদের কাছে গ্রহণযোগ্য এবং প্রিয় হয়ে থাকে তবে তাদের দাবী আমরা অবশ্যই বিবেচনা করব। বিষয়টি নিয়ে আমরা স্থানীয় সাংসদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সহযোগিতায় যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব। এছাড়া যারা কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করছেন তাদেরকেও সনাক্ত করা হবে’।

Check Also

Muradnagar=23-03-19=

করিমপুর মাদরাসায় বোখারী শরীফের খতম ও দোয়া

মো. হাবিবুর রহমান :– কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার করিমপুর জামিয়া দারুল উলূম মুহিউস্ সুন্নাহ মাদরাসায় ১৪৪০ ...

Leave a Reply